কারাবন্দি জার্মান নাগরিককে নির্যাতনের অভিযোগ, কঠোর প্রতিবাদ

Karagar_bg_342193932

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- জার্মান নাগরিক শেমিজওয়া তমাস গোরাওতোভিজের ওপর নির্যাতন করার অভিযোগ করেছে বাংলাদেশে দেশটির দূতাবাস। তারা বলেছেন, কাশিমপুর কারাগারে বন্দি জার্মান নাগরিক শেমিজওয়া তমাস গোরাওতোভিজকে অমানবিক আচরণ ও মারধর করা হয়েছে। জার্মান দূতাবাসে জার্মান নাগরিকের এই মামলা দেখভালের দায়িত্বে থাকা কাউন্সেলর অফিসার সম্প্রতি গোরাওতোভিজকে দেখতে কাশিমপুর কারাগারে যান।

ওই সময় কাউন্সেলর তার দেহে আঘাতের চিহ্ন দেখতে পান বলে জানিয়েছেন। তার হাত-পায়ে বড় আঘাতের চিহ্ন দেখতে পান। তার বাঁ হাঁটু প্রচণ্ড ফুলে গেছে। এতে তিনি হাঁটতে পারছিলেন না। জার্মান সরকারের এ অভিযোগের বিষয়টি জানিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে বুধবার চিঠি পাঠিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। গোয়েন্দা শাখায়ও এই চিঠির অনুলিপি পাঠানো হয়।

চিঠিতে জানানো হয়, কারা কর্তৃপক্ষ যদিও বলেছে, গোরাওতোভিজকে যথেষ্ট সমাদর করা হয়েছে। বাস্তবে গত ৫ মে শেষ হওয়া পাঁচ দিনের রিমান্ডের পরই এসব আঘাতের চিহ্ন তার দেহে দেখা যায়। গোরাওতোভিজের প্রতি এ ধরনের অমানবিক আচরণের কঠোর প্রতিবাদ জানায় জার্মানি। গোরাওতোভিজের সুরক্ষায় এবং স্বাস্থ্যের প্রতি নজরদারি বাড়াতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানায় জার্মানি।

প্রসঙ্গত, গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) তাকে গ্রেপ্তার করে। জানতে চাইলে কাশিমপুর কারাগারের তত্ত্বাবধায়ক প্রশান্ত কুমার বণিক বলেন, গোয়েন্দা পুলিশ যখন তাকে রিমান্ডে নেয়, তখনই তিনি এ ধরনের নির্যাতনের শিকার হন। পরে তাকে কাশিমপুর কারাগারে আনা হলে চিকিৎসা দেওয়া হয়। মূলত জার্মান সরকারের অভিযোগ পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) বিরুদ্ধে। তারা তার প্রতি অমানবিক আচরণ করেছে।