ইয়েমেন যুদ্ধ থেকে সরে দাঁড়াল আরব আমিরাত

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ


4bk669edff63ff8ues_800C450ইয়েমেনে সামরিক অভিযান অবসানের ঘোষণা দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত বা ইউএই। এর ফলে দারিদ্রপীড়িত ইয়েমেনে বর্বরোচিত আগ্রাসন চালিয়ে আসা সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট থেকে আরব আমিরাত নিজেকে প্রত্যাহার করে নিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

আরব আমিরাতের ক্রাউন প্রিন্স এবং দেশটির সামরিক বাহিনীর উপপ্রধান শেইখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল-নাহিয়ান গতকাল (বুধবার) তার অফিসিয়াল টুইটার বার্তায় বলেন, ‘আমাদের অবস্থান পরিষ্কার। আমাদের সেনারা আর যুদ্ধ করবে না।মুক্ত এলাকায় ইয়েমেনিদেরকে ক্ষমতায়ন করার লক্ষ্যে এখন রাজনৈতিক ব্যবস্থার দিকেই আমরা নজর রাখছি।’ আরব আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনোয়ার গারগাশ এই সম্পর্কে মন্তব্যেরও উদ্ধৃতি দেন ক্রাউন প্রিন্স নাহিয়ান। তবে আরব আমিরাত কেন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে তার বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেন নি তিনি।

সৌদি নেতৃত্বাধীন বাহিনী ইয়েমেনে আগ্রাসন চালানোর পর থেকে জনপ্রিয় আনসারুল্লাহ যোদ্ধা এবং সামরিক ইউনিট এই শত্রু বাহিনীর বিরুদ্ধে শক্ত প্রতিরোধ গড়ে তোলার পরিপ্রেক্ষিতে আরব আমিরাতের সেনারা ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির মুখে পড়ে।

গত (সোমবার) ইয়েমেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় বন্দর নগরি এডেনের আল-বুরাইকেহ উপকূলে আমিরাত সেনাবাহিনীর একটি হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়। এতে দুই পাইলট নিহত হয়।

গত সেপ্টেম্বরে আনসারুল্লাহ বাহিনী এবং সামরিক ইউনিট ইয়েমেনের মধ্যাঞ্চলীয় মারিব প্রদেশে সৌদি নেতৃত্বাধীন বাহিনীর ওপর এক ঝাঁক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করলে আরব আমিরাতের অন্তত ৫২ সেনা নিহত হয়েছিল বলে দেশটির সামরিক সূত্র নিশ্চিত করেছিল।

এদিকে, ইয়েমেনের বিরুদ্ধে সৌদি আরবের চাপিয়ে দেয়া যুদ্ধে আরব আমিরাতের পরিবর্তে জর্ডানের সেনাদেরকে স্থলাভিষিক্ত করা হবে বলে খবর বের হয়েছে।