হিজবুল্লাহকে নিয়ে ইসরাইলের আতঙ্ক ও আত্মরক্ষার অনুশীলন

4bk68da9eb5a028top_800C450


আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

লেবাননের জনপ্রিয় ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহর সঙ্গে সম্ভাব্য যুদ্ধে ভয়াবহ ক্ষয়ক্ষতি এড়ানোর জন্য ইসরাইলি সেনা কর্মকর্তাদের অনেকেই নিজের ও পরিবার-পরিজনের জন্য গোপন আশ্রয় কেন্দ্র নির্মাণ করেছে।

লেবাননের দৈনিক আলআখবার ইসরাইলি সংবাদ মাধ্যম ও সংবাদ সূত্রগুলোর বরাত দিয়ে জানিয়েছে, ইসরাইল ২০০৬ সালের জুলাই মাসে শুরু-হওয়া ৩৩ দিনের যুদ্ধের বার্ষিকী নির্ধারিত দিনের কিছু আগেই পালন করেছে। হিজবুল্লাহর সঙ্গে ওই যুদ্ধে যেসব ইসরাইলি নিহত হয়েছিল তাদের পরিবার-পরিজন এই বার্ষিকী পালন করেছে হিব্রু ক্যালেন্ডারের আলোকে। প্রায় একই সময়ে ইসরাইল হিজবুল্লাহর সঙ্গে সম্ভাব্য যুদ্ধের মহড়া চালিয়েছে এবং এ নিয়ে ব্যাপক প্রচারণা চালিয়েছে।

ইসরাইলি সংবাদ মাধ্যমগুলো বলছে, হিজবুল্লাহর সামরিক ক্ষমতা অনেক বেড়েছে এবং সিরিয়ায় যুদ্ধ করতে করতে হিজবুল্লাহর অভিজ্ঞতাও অনেক বেড়েছে।

ইসরাইলি দৈনিক জেরুজালেম পোস্ট লেবানন সীমান্ত অঞ্চলের একজন উচ্চ-পদস্থ ইসরাইলি সেনা কর্মকর্তার কথা এ প্রসঙ্গে উল্লেখ করেছে। ওই কর্মকর্তা বলেছেন, ২০০৬ সালের তুলনায় হিজবুল্লাহর হিজবুল্লাহর সামরিক ক্ষমতা গুণগত ও পরিমাণগত দিক থেকে অনেক গুণ বেড়েছে। দৈনিকটি লিখেছে, দশ বছর আগের সেই যুদ্ধের তুলনায় হিজবুল্লাহর সেনারা অস্ত্রে-শস্ত্রে অনেক বেশি সুসজ্জিত এবং ইসরাইলি সেনাদের সঙ্গে যুদ্ধের জন্য উন্নত প্রশিক্ষণ ও ক্ষমতার অধিকারী।

ওই কর্মকর্তা আরও বলেছেন, হিজবুল্লাহর সেনারা সিরিয়ার যুদ্ধক্ষেত্র থেকে যে অভিজ্ঞতা অর্জন করছে ইসরাইলি সেনাদের জন্য কঠিনতম অনুশীলন বা মহড়ার মাধ্যমেও তা অর্জন করা খুব কঠিন ব্যাপার।