ফরমালিনের নিরব আতংক: নবীগঞ্জে অবাধে বিক্রি হচ্ছে ফরমালিনযুক্ত ফল

মতিউর রহমান মুন্না, নবীগঞ্জ প্রতিনিধি:


gt

নবীগঞ্জে ফরমালিনের নিরব আতংকে ভাসছে জনপদ। মধু মাসের আম, কাঁঠাল, আনারস সহ বিভিন্ন কাচাঁ মালেও ব্যবহার হচ্ছে ফরমানিল নামের বিষ। নবীগঞ্জ উপজেলা সদর সহ বিভিন্ন হাটবাজারে অবাধে বিক্রি হচ্ছে ফরমালিনযুক্ত মৌসুমী ফল। এ ব্যাপারে প্রশাসন কোনো পদক্ষেপ না নেয়ায় ক্রেতারা প্রতিনিয়ত প্রতারিত হচ্ছেন। রমজান মাসে বাজারে প্রচুর ফল উঠলেও ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান না থাকায় ফরমালিন মিশ্রিত এসব ফল খেয়ে অনেকেই বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন।

বিশেষ করে শিশুরা এসব রোগে বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন। কিন্তু ফরমালিন পরীক্ষার ব্যাপারে সরকারের পক্ষ থেকে কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়া হলেও এ বছরে নবীগঞ্জ উপজেলায় এর কোনো প্রভাব পড়েনি। শহর কিংবা কোন এলাকায় মোবাইল কোর্টের কোন অভিযানেরও খবর পাওয়া যায়নি। গত ১৩/০৬/২০১৬ ইং তারিখে উপজেলার পানিউমদা এলাকায় ফরমালিনযুক্ত আম খেয়ে এক স্কুল ছাত্রের মৃত্যুর অভিযোগ উঠে। এ নিয়ে সময়ের কন্ঠস্বর সহ বিভিন্ন জাতীয় ও স্থানীয় বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় ফলাও করে সংবাদ প্রকাশ হয়। এরপর থেকে যেন অনেকের মনেই ফরমালিনের নিরব আতংক বিরাজ করছে।

সরজমিনে বিভিন্ন হাট বাজারে দেখা যায়, উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজারে প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে ফরমালিন মিশ্রিত ফল। ক্রেতারা বাড়তি পুষ্টির আশায় প্রতিদিন আম, জাম, কাঁঠাল, লিচু, মাল্টা, আনারস সহ বিভিন্ন রকম ফল কিনছেন। এসব ফল ফরমালিন নামের বিষ মিশিয়ে বিক্রয় করা হচ্ছে। যাতে ফলে পচন না ধরে। ফলে সচেতনদের অনেকেই ফরমালিন আতংকে এ ফল কিনতে আগ্রহী হচ্ছে না। আবার অনেকেই না জেনে না বুঝে এসব ফল খেয়ে অসুস্থ হচ্ছেন।

বাজারে ফল কিনতে আসা সুমন মিয়া সময়ের কন্ঠস্বরকে বলেন, কোন ফলে ফরমালিন আছে আমরা তো জানি না। প্রশাসন প্রতিনিয়ত যদি বাজার মনিটরিং করত তাহলে আর ভেজাল কোনো পণ্য বাজারে বিক্রয় হতো না। আমাদেরও কোনো ফরমালিনযুক্ত ফলমূল কিনতে হতো না। এভাবে অনেকেরই ফরমালিন নিয়ে আতংক। নিরব ঘাতক ফরমালিনের ফলে মানবদেহের ক্ষতির এই সংবাদ কার না অজানা।