নাগেশ্বরীর ঝাকুয়াটারী ব্রিজটি ঝুঁকিপূর্ণ

ফয়সাল শামীম, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:


ng

কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীর ভিতরবন্দ দিগদারী ঝাকুয়াটারী ব্রিজটির রেলিং ও স্লাবের কয়েক জায়গায় ভেঙ্গে যাওয়ায় ঝুঁকি নিয়ে পাড়াপাড় করছে যাত্রীরা। মাঝে মাঝে ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা।

উপজেলার ভিতরবন্দ ইউনিয়নের দিগদারী ভবানীকুড়া বিলের উপর ১৯৯২ সালে জেলা পরিষদের অর্থায়নে শুধুমাত্র হালকা যানবাহন সহ মানুষ পাড়াপাড়ে ব্রিজটি নির্মান করা হয়। সে সময় নকশার উপড়ে তেমন কোন গুরুত্ব দেয়া হয়নি। ফলে ২০০৭ সালে ব্রিজটির রেলিং এর বেশিরভাগ অংশ ও স্লাবের কয়েক জায়গায় ঢালাই ধ্বসে গিয়ে রড বেরিয়ে যায়। ব্রিজে দাঁড়িয়ে সেই ভাঙ্গা অংশ দিয়ে দেখা যায় বিলের পানি। স্থানীয়রা স্লাবের ভাঙ্গা অংশে বালুর বস্তা দিলেও মানুষের অব্যাহত চলাচলে ক্রমেই বৃদ্ধি পাচ্ছে এর পরিধি। মাঝে মাঝে সেখানে যাত্রীদের পা ঢুকে যাওয়ায় আহত হয়।

রেলিং এর একটা বড় অংশ ভাঙ্গা থাকায় পাশ দিয়ে যেতে অনেক সময় সাইকেল-মোটর সাইকেল সহ পাড়াপাড়কারীরা পানিতে পরে যায়। বিকল্প রাস্তা না থাকায় তারপরেও গত নয় বছর ধরে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে সাতানা, শিকদারপাড়া, ঝাকুয়াটারী, সরকারপাড়া, পুসকরনীর পাড়, দিগদারীর পাড়, ভবানীপুর, ঝাকুয়াটারী সহ ১৫ গ্রামের প্রায় ৪০ হাজার মানুষ।

স্থানীয় গোলাম মওলা, হাফিজুল হক, জাহিদুল ইসলাম, ফয়েজ উদ্দিন, নুরন্নবী মিয়া, জাহান আলী, কাশেম মিয়া বলেন ব্রিজটি অনেক পুরোনো হওয়ায় এটি ভেঙ্গে নতুন ব্রিজ নির্মান করা জরুরী হয়ে পড়েছে।

উপজেলা প্রকৌশলী বাদশাহ আলমগীর সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, ইতোমধ্যে রংপুর বিভাগীয় পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প (RDRIIP) এর মাধ্যমে সেখানে নতুন একটি ব্রিজ নির্মানে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

সংখ্যালঘু ও গুপ্ত হত্যার প্রতিবাদে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের মানববন্ধন

ধর্মীয় সংখ্যালঘু, মুক্তচিন্তার মানুষ সহ সকল গুপ্ত হত্যার প্রতিবাদে কুড়িগ্রামে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। দেশ ব্যাপী কর্মসূচীর অংশ হিসেবে আজ শনিবার দুপুরে কুড়িগ্রাম শহীদ মিনার চত্বরে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় বক্তব্য রাখেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট কুড়িগ্রাম জেলা শাখার আহবায়ক শ্যামল ভৌমিক, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার সিরাজুল ইসলাম টুকু, ডেপুটি কমান্ডার আমিনুল ইসলাম, উদীচী কুড়িগ্রামের সাধারণ সম্পাদক মানিক চৌধুরী, মহিলা পরিষদের সভানেত্রী নন্দীতা চক্রবর্তী, আওয়ামীলীগ নেতা ছানালাল বকসী, অলক সরকার, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি জ্যোতি আহমদ, প্রচ্ছদ কুড়িগ্রাম এর সভাপতি জুলকারনাইন স্বপন, সাংস্কৃতিক সংগঠক ইমতে আহসান শিলু, সুব্রতা রায় প্রমূখ।

বক্তারা দেশব্যাপী ধর্মীয় সংখ্যালঘু সহ সকল গুপ্ত হত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হবার পাশাপাশি সরকারকে জঙ্গী দমনে আরো কঠোর হওযার আহবান জানান।