লিবিয়ায় গ্যাস সিলেন্ডার বিষ্ফোরনে মঠবাড়িয়ার শ্রমিক নিহত

re


মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধিঃ

লিবিয়ায় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে গত বুধবার  সন্ধ্যায় আলুজাওয়াইয়া শহরের মুত্তত এলাকায় অগ্নিদগ্ধ হয়ে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া সদর ইউনিয়নের দক্ষিণ মিঠাখালী গ্রামের মৃত ওয়াযেদ হাওলাদারের ছেলে মোস্তফা কামাল (৪৫) নামের এক শ্রমিকসহ তিন জনের মৃত্যু ঘটেছে।

নিহত অপর দুইজন বেল্লাল হোসেন ও আবু হানিফের বাড়ি পাথরঘাটা থানার চরদুয়ানীর কাঁঠালতলী বলে জানাগেছে। এসময় অগ্নিদগ্ধ হয়ে আরও দুইজন  শ্রমিক আল-জাওয়াইয়া সেন্ট্রাল হাসপাতালের বিছানায় মৃত্যুও সাথে পাঞ্জা লড়ছে। আহত শ্রমিক দুলাল খান মঠবাড়িয়ার হারজি নলবুনিয়া ও চুন্নু মিয়া পাশ্ববর্তী ভান্ডারিয়ার চরখালী গ্রামের বাসিন্দা।

জানা গেছে, বুধবার সন্ধ্যায় শ্রমিকরা নিজেদের ঘরে গ্যাসের চুলা জ্বালানোর সময়ে সিলিন্ডার বিস্ফোরণ ঘটে এবং কক্ষে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এসময় মঠবাড়িয়ার মোস্তফা কামাল, দুলাল খান,  কাঁঠালতলীর বেলাল হোসেন, আবু হানিফ ও চরখালীর চুন্নু মিয়ার শরীর আগুনে ঝলসে যায়।

পরে স্থানীয় শ্রমিকরা তাঁদের উদ্ধার করে প্রথমে আল-জাওয়াইয়া সেন্ট্রাল হাসপাতালে পরে ত্রিপলি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মোস্তফা কামাল, বেলাল হোসেন ও আবু হানিফ মারা যান।

নিহত মোস্তফা কামালের স্ত্রী খাদিজা আক্তার বার বার মূর্ছা যেতে যেতে বলেন, সবকিছু খুয়াইয়া বিদ্যাস গেলা। তুমি আর ফিররা আইলা না। এহন মুই ক্যমনে পোলা দুইডা লইয়া বাচমু। ওরে মোর স্বামীর লাশটা তোরা বাড়িতে আইন্যা দেন।

নিহত মোস্তফা কামালের বড় ভাই দিন মজুর মোঃ শহীদুল ইসলাম বলেন, মোস্তফাকে গত সতের মাস আগে সুদে টাকা এনে ও জমি বিক্রি করে লিবিয়ায় পাঠাই। সুদ বারতে বারতে এখন প্রায় বারো লাখ টাকা মানষে পায়। আমার ভাই মারা যাওয়ায় আমরা পথে বসছি। তিনি নিহত মোস্তফার লাশ লিবিয়া থেকে বাড়িতে ফিরিয়ে আনতে সরকারের প্রতি দাবি জানান।

এ বিষয়ে মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, লিবিয়্য়া মর্মান্তিকভাবে কয়েকজন শ্রমিকের মৃৃত্যুও খবর  শুনেছি । সেখানে মঠবাড়িয়ার এক শ্রমিকও নিহত হয়েছে। তবে এ মূহুর্তে নিহত ওই শ্রমিকদের কোন তথ্য থানা প্রশাসনের কাছে নেই।