সরকারীভাবে বিদেশী শ্রমিক নেয়া প্রসঙ্গে মালয়েশিয়ার নতুন নিয়ম ঘোষণা

1371376265

প্রবাসের কথা ফিচার, সময়ের কণ্ঠস্বর :

‘শ্রমিকের চাহিদা এসেছে শিল্পখাত থেকে এবং সরকার শুধু এই প্রক্রিয়াকে সহজতর করতে চায়। আসলেই দেশে কী পরিমাণ বিদেশী শ্রমিক দরকার তা নিয়ে সরকারি বিভিন্ন সংস্থা কাজ করছে। এই গবেষণা সরকারকে দেশে বিদেশি শ্রমিক ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত নিতে সহযোগিতা করবে।’মালয়েশিয়ার গণমাধ্যমে একথা জানিয়েছেন দেশটির  উপ-প্রধানমন্ত্রী দাতুক সেরি ড. আহমাদ জাহিদ হামিদি।

উপপ্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যমতে, সরকারিভাবে আর বিদেশি শ্রমিক নেবে না মালয়েশিয়া। এখন থেকে বেসরকারিভাবে সেসব কোম্পানি এবং নিয়োগদাতাদের প্রয়োজন হবে তারা নিজেরাই উদ্যোগী বিদেশি শ্রমিক নেবে। সরকার শুধু প্রয়োজন বিবেচনা করে বিদেশি শ্রমিকের নিয়োগের ব্যাপারে অনুমোদন দেবে। তবে এক্ষেত্রে কঠোর শর্ত মানতে হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে আহমাদ জাহিদ জানিয়েছেন, বিদেশি শ্রমিকের সঙ্কটের কারণে কিছু অর্থনৈতিক খাত মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিশেষ করে পামওয়েল শিল্প প্রতি মাসে ২ বিলিয়ন মালয়েশিয়ান রিঙ্গিত করে ক্ষতির মধ্যে পড়েছে। আর শ্রমিকের অভাবে কমপক্ষে ২৪টি ফার্নিচার তৈরির কারখানা বন্ধই হয়ে গেছে।
ড. আহমাদ জাহিদ হামিদি

তিনি এও বলেছেন যে, মালয়েশিয়ার অবৈধ শ্রমিক প্রবেশ ঠেকাতে মন্ত্রণালয়ও তৎপরতা দেখিয়েছে। এ বছরের ১৫ জুন পর্যন্ত ৫ হাজার ৬২২টি অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। এসব অভিযানে ৯১ হাজার ৭৫ জন বিদেশি শ্রমিকের কাগজপত্র যাচাই করা হয়েছে। যার মধ্যে ২৭ হাজার ৪৯৮ জনের বৈধ কাগজপত্র না থাকায় তাদের আটক করা হয়েছে। এমনকি ৬৬২ জন নিয়োগদাতা এবং বিদেশি শ্রমিক আনার ৭টি চক্রের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।