বাবার জন্য কিনতে চাইলে ‘বাবা দিবসের উপহার’!

Fathers Day Gift By somoyerkonthosorনিশীতা মিতু,লাইফস্টাইল ফিচার এডিটর, সময়ের কণ্ঠস্বর

বাবার জন্য আমাদের জীবনের প্রতিটি দিনই উৎসর্গ করা উচিত। বাবা হচ্ছেন সেই মানুষ যিনি অক্লান্ত পরিশ্রম করে মানুষ করে যান আমাদের। বাবাকে ভালোবাসি কথাটি সবসময় বলা না হলেও বছরে একটি দিন অন্তত তার প্রতি ভালোবাসা প্রদর্শন করা যায়। আর সেই ভালোবাসা প্রকাশের একটি দিন হল ‘বাবা দিবস’। প্রতি বছর জুন মাসের তৃতীয় রবিবারকে বিশ্ব বাবা দিবস হিসেবে পালন করা হয়ে থাকে।
হিসেব অনুযায়ী আগামী ১৯ তারিখ বাবা দিবস। এবার বাবা দিবসে কি উপহার দিবেন বাবাকে? বাবাকে চমকে দেওয়ার কোন প্ল্যান কি করেছেন? নাকি ভেবেই পাচ্ছেন না কি দিবেন। তাহলে চলুন একটু আলোচনা করা যাক।
শার্ট বা পাঞ্জাবীঃ এবারের বাবা দিবসের কিছু দিন পরেই ঈদ। তাই চাইলে বাবাকে বাবা দিবস আর ঈদের উপহার হিসেবে পোশাক দিতে পারেন। বাবা সাধারণত যে ধরণের পোশাক পরে সেটিই উপহার হিসেবে নির্বাচন করুন। ৬০০ – ২০০০টাকায় পাবেন শার্ট। ৯০০ – ২,৫০০টাকা পেতে পারেন পাঞ্জাবী। পোলো টি শার্ট পাবেন ১২০০- ৩০০০টাকায়।
কফি মগঃ বাবা যদি কফি প্রেমী হয়ে থাকে তবে নিঃসন্দেহে কম টাকায় কফি মগ এটি ভালো গিফট। ২০০ – ৪০০টাকায়ই পেয়ে যাবেন কফি মগ। সাথে দিতে পারেন একটি চাবির রিং কিংবা চশমা দানী।
স্ক্রাব বুকঃ বাজারে রঙিন কাগজের স্ক্রাব বুক পাওয়া যায়। দাম ৭০-৮০ টাকা। একটা স্ক্রাব বুক কিনে তাতে বাবার সাথে আপনার ছোটবেলা থেকে বড়বেলার কিছু ছবি প্রিন্ট করে লাগিয়ে দিন। সাথে লিখুন, পুরোনো দিনের কিছু কান্না হাসির কথা। কে জানে, হয়ত বাবা আবেগ আপ্লুত হয়ে যাবেন স্কাব বুকের পাতা উল্টিয়ে।
টাই বা মানিব্যাগঃ একটু খেয়াল করে দেখুন বাবার ঠিক কোন প্রয়োজনীয় জিনিসটার অভাব রয়েছে। সেই জিনিসই উপহার হিসেবে বেছে নিন। কিনতে পারেন টাই। কিংবা দিতে পারেন মানিব্যাগ। ৬০০-২০০০টাকা লাগবে এক্ষেত্রে।
কার্ড আর ফুলঃ ধরুন আপনার কাছে তেমন অর্থ নেই কিন্তু বাবাকে কিছু একটা উপহার দেয়ার খুব ইচ্ছে। নিজেই বানিয়ে ফেলুন বাবা দিবসের বিশেষ কার্ড। মোটা রঙিন কাগজ কেটে বাহারী নকশা এঁকে বানিয়ে ফেলুন কার্ড। ভেতরে লিখুন বাবাকে না বলা কিছু কথা। সাথে দিন একটি রজনীগন্ধা আর গোলাপের তোড়া। ব্যাস, বাবা খুশি আপনিও খুশি।
আরো যা কিছু বাবার জন্যঃ চাইলে নিজের হাতে শপিস বানাতে পারেন বাবার জন্য। উপহার হিসেবে বেছে নিতে পারেন জুতো, ঘড়ি, ছাতা, সানগ্লাস, পানদানি, জায়নামাজ, তসবী, আতর, পারফিউম বা অন্য কিছু। আর যদি কিছুই কিনতে না পারেন তবে অন্তত একবার বাবাকে জড়িয়ে ধরে বলুন, ‘ভালোবাসি বাবা, খুব ভালোবাসি তোমাকে’।
ভালো কাটুক সবার বাবা দিবস। বাবার জন্য ভালোবাসা টিকে থাকুক সারাটা বছর জুড়ে।