বড় সুযোগ দিচ্ছে বিআরটিএ, রাস্তাতেই করা যাবে মোটর সাইকেল রেজিস্ট্রেশন

motorbayik]

সময়ের কণ্ঠস্বর- বিআরটিএ’তে মোটর সাইকেল রেজিস্ট্রেশন! নানা নিয়ম-কানুন, এ কক্ষ থেকে সে কক্ষ দৌড়াদৌড়ি, ঘুরতে ঘুরতে জুতার তলা ক্ষয়ে যাওয়ার জোগার, তারপরও ভাগ্য প্রসন্ন না হলে রেজিস্ট্রেশনে লেগে যেতে পারে মাসখানেক সময়। কতো ঝক্কিঝামেলা!

তবে এখন আর বিআরটিএ যেতে হবে না। পুলিশি মামলার ঝামেলা এড়াতে বাইক নিবন্ধন করে ফেলুন সংসদ ভবনের পাশে খোলা রাস্তায়।

২৩ জুন (বৃহস্পতিবার) রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউতে ‘আন্তর্জাতিক সিভিল সার্ভিস দিবস’ উপলক্ষ্যে স্পট রেজিস্ট্রেশনের সুযোগ দেবে বিআরটিএ। এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে বিআরটিএ। এই বিজ্ঞপ্তিটি ওয়েবসাইটের পাশাপাশি বিআরটিএ কার্যালয়েও প্রদর্শিত হচ্ছে ।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২৩ জুন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকার মোটরসাইকেল স্পটে রেজিস্ট্রেশন করা হবে। আগ্রহী সেবাগ্রহীতাদের মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশনের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও মোটরসাইকেলসহ নির্ধারিত সময়ের মধ্যে হাজির হওয়ার অনুরোধ জানানো হয়।

মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশনের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঙ্গে নিয়ে আসার অনুরোধ করা হয় বিজ্ঞপ্তিতে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, রাস্তায় চলার পথে পুলিশি মামলার ঝামেলা এড়াতে বাইক নিবন্ধন এই সুয়োগ নেয়া উচিৎ। সাধারণত রেজিস্ট্রেশন হাতে পেতে মাসখানেক সময় লেগে যায়। সঙ্গে কিছু ঝামেলা তো থাকেই।

এভাবে রেজিস্ট্রেশনের জন্য যেসব কাগজ সঙ্গে আনতে হবে-

১. মালিক ও আমদানিকারক/ডিলার কর্তৃক যথাযথভাবে পূরণ ও স্বাক্ষর করা নির্ধারিত আবেদনপত্র।
২. মালিকের ৩ কপি সদ্য তোলা স্ট্যাম্প সাইজের রঙিন ছবি।
৩. বিল অব এন্ট্রি, ইনভয়েস, বিল অব লেডিং ও এলসিএ কপি (ফটোকপি আমদানিকারক অথবা শো রুম মালিক কতৃক সত্যায়িত)
৪. সেল সার্টিফিকেট/সেল ইন্টিমেশন/বিক্রয় প্রমাণপত্র।
৫. প্যাকিং লিস্ট, ডেলিভারি চালান ও গেইট পাস
৬. (ক) মূসক-১, (খ) মূসক-১১(ক) এবং (গ) ভ্যাট পরিশোধের চালান
৭. সিকেডি মোটরযানের ক্ষেত্রে বিআরটিএর টাইপ অনুমোদন ও অনুমোদিত সংযোজনী তালিকা
৮. রেজিস্ট্রেশন ফি জমাদানের রসিদ
৯. ব্যক্তি মালিকানাধীন আবেদনকারীর ক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয়পত্র/ পাসপোর্ট/ টেলিফোন
বিল/ বিদ্যুৎ বিল ইত্যাদির যেকোন একটির সত্যায়িত ফটোকপি এবং মালিক প্রতিষ্ঠান হলে প্রতিষ্ঠানের প্যাডে চিঠি।
১০. ১২৫ ও তদূর্ধ্ব সিসি ক্ষমতাসম্পন্ন মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশনের ক্ষেত্রে ৫০ (পঞ্চাশ)
টাকার নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে অঙ্গিকারনামা (অঙ্গিকারনামার নমুনা ওয়েবসাইটে ও
স্পটে পাওয়া যাবে)।