কাপড়ে যত দাগই লাগুক না কেন মুছে ফেলার সব ম্যাজিক একসাথে

সাদিয়া, সুলতানা, সময়ের কণ্ঠস্বর, সমস্যা ও সমাধান ফিচার – 

ভিন্ন ভিন্ন রঙয়ের কাপড়ে নানারকম দাগ লেগে বিড়ম্বনায় পড়ি আমরা । সঠিক পদ্ধতি না জেনে অনেকসময় ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে যায় শখের  কাপড়। সাধারণত সবাই যেকোন দাগের বেলাতেই একইনিয়মে কাপড় ধুয়ে দাগ পরিস্কারের চেষ্টা করে থাকেন। কিন্তু এ পদ্ধতি সঠিক নয়। ভিন্ন ভিন্ন দাগের জন্য আছে ভিন্ন কৌশল ! সময়ের কণ্ঠস্বরের পাঠকদের জন্য আজ সেসব বিষয় নিয়ে আয়োজন ।

কাপড়ে তেল, ঝোলের দাগ পড়লে তা শুষে নেওয়ার জন্য ব্যবহার করুন ট্যালকম পাউডার। প্রথমে কাপড়ের দাগের ওপর একটু বেশি করে ট্যালকম পাউডার দিয়ে শুকনো অবস্থায় ব্রাশ দিয়ে ঘষে নিন। ঘষলে হালকা তেল, ঝোলের দাগ উঠে যাবে। এরপর সাবান পানি দিয়ে ধুয়ে ফেললে পুরো দাগটাই চলে যাবে। সরাসরি সাবান-পানি দিয়ে ধুলে কাপড়ে লাল দাগ হয়ে যেতে পারে।

চা, কফির দাগ কাপড়ে লাগলে সঙ্গে সঙ্গেই পানি দিয়ে ধুয়ে ফেললে দাগ চলে যাবে। অথবা একটু তরল দুধ দিয়ে দাগের স্থানে ব্রাশ দিয়ে ঘষে নিন। এবার ধুয়ে ফেললে দাগ উঠে যাবে। অনেক সময় কাপড়ে চা-কফির অনেক পুরোনো দাগ পড়ে যায়। এ ক্ষেত্রে হাইড্রোজেন পার অক্সাইড দাগের স্থানে দিয়ে কিছুক্ষণ পর সাবান পানি দিয়ে ধুয়ে রোদে শুকাতে দিলে দাগ চলে যাবে।কাপড়ের যে স্থানে হলুদ কিংবা মসলার দাগ লাগবে সে স্থানে লেবুর রস দিয়ে ঘষা দিয়ে সাবান পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। তারপর কড়া রোদে শুকাতে দিতে হবে।

চা কফির দাগের জন্য

প্রথমেই পানি দিয়ে দাগের অংশটুকু ধুয়ে নিতে হবে। যদি এতেও দাগ না উঠে তবে যে অংশে দাগ লেগেছে তা সারারাত ধরে ঠান্ডা দুধে ভিজিয়ে রাখতে হবে। পরদিন মৃদু ডিটারজেন্ট দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। এরপর ভিনেগার ও অল্প ঠান্ডা পানি মিশিয়ে দাগে স্প্রে করে দিতে হবে। ১ চামচ বেকিং সোডা লাগিয়ে ভাল করে ঘষলে দাগ উঠে যাবে।

tips-somoyerkonthosor2

সসের দাগ

প্রথমেই ঠান্ডা পানি দিয়ে জায়গাটা ধুয়ে নিতে হবে। এরপর সোডা বা একফালি লেবু দিয়ে জায়গাটা ভাল করে ঘষতে হবে। পানি দিয়ে ভাল করে ধুয়ে শুকাতে হবে। এতেও যদি দাগ না উঠে তবে হালকা গরম পানিতে আধা চা চামচ ডিটারজেন্ট পাউডার, ১ টেবিল চামচ সাদা ভিনেগার মিশিয়ে মিশ্রণে কাপড়টি ১৫ মিনিট ভিজিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

রক্তের দাগ

সাদা কাপড়ে রক্তের দাগ লাগে তবে লিক্যুইড ব্লিচ দিয়ে ধুতে হবে।

ঘামের দাগ লাগলে

গরমের সময় এই সমস্যাটা বেশি হয়। বিশেষ করে ঘামের দাগ শুকিয়ে সাদা হয়ে যায়। এক্ষেত্রে ঠান্ডা পানিতে ভিজিয়ে রেখে সাদা ভিনেগার দিয়ে ঘষতে হবে। কিছুক্ষণ পরে ডিটারজেন্ট দিয়ে হালকা ব্রাশ করে ধুয়ে ফেলতে হবে। আর জামা থেকে ঘামের গন্ধ দূর করার জন্য রঙবিহীন মাউথ ওয়াশ দিয়ে ঘামের জায়গাটা ধুয়ে দিতে হবে।
কালির দাগ লাগলে

কাপড়ের যে অংশটিতে বলপেনের কালির দাগ লেগেছে তাকে গ্লাসের ওপর টেনে মেলে দিয়ে ওপর থেকে অ্যালকোহল খুব আস্তে আস্তে ঢেলে দিতে হবে। এরপর পেট্রোলিয়াম জেলি দিয়ে ঘষে তুলতে হবে। এছাড়া ঠান্ডা পানিতে লেবুর রস ও ডিটারজেন্টের মিশ্রণে ৫ মিনিট রেখে ধুয়ে নিতে হবে। যদি সাদা কাপড়ে লাগা কালির দাগ শুকিয়ে যায় তবে ফুটন্ত গরম পানিতে ১ টেবিল চামচ লবণ বা লেবুর রস লাগিয়ে মিশ্রণটিতে কাপড় ভিজিয়ে লাখতে হবে। সাথে সাথে লাগা কালির দাগ উঠাতে দুধ বা ঘোলে কাপড়টি ধুয়ে নিতে হবে।

তেল-ঘি’র দাগের জন্য

প্রথমে জামা থেকে অতিরিক্ত তেল পেপার টাওয়াল বা টিস্যু পেপার দিয়ে চেপে চেপে শুষে নিতে হবে। এরপর বাসন ধোয়ার ডিটারজেন্ট অল্প করে মাখিয়ে নিতে হবে দাগের ওপর। ২ মিনিট পরে আরও ডিটারজেন্ট মাখিয়ে রেখে তারপর হালকা পানি দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে।

ফলের রস বা ওয়াইনের দাগের জন্য

দাগের ওপর লবণ ছড়িয়ে দিতে হবে। এরপর ঠান্ডা পানিতে কাপড় ভিজিয়ে হালকা গরম পানিতে ধুতে ফেলতে হবে।

চুইংগামের দাগ লাগলে

শক্ত গাম প্রথমেই নরম করে নিতে হবে বরফ ঘষে এবং ভোঁতা ছুরি দিয়ে ঘষে। এরপর সাবান পানিতে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রেখে ভাল করে ধুয়ে নিতে হবে।