গাজীপুরে সাংবাদিকদের উপর জুয়াড়িদের হামলা : আহত ৩

assult-on-journalist
রেজাউল সরকার (আঁধার), গাজীপুর প্রতিনিধি: গাজীপুরে জুয়াড়িদের হামলায় ইলেকট্রনিক মিডিয়ার তিন সাংবাদিক আহত হয়েছেন। গাজীপুর সদর উপজেলার বাঘেরবাজার এলাকায় সোমবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা সাংবাদিকরা হলেন-আরটিভির গাজীপুরের স্টাফ রিপোর্টার ও গাজীপুর প্রেসক্লাবের দপ্তর সম্পাদক মো. আজহারুল হক, মোহনা টিভির গাজীপুর প্রতিনিধি মো. আতিকুর রহমান আমিন ও জিটিভির জেলা প্রতিনিধি আব্দুল্লাহ আল মামুন। তাদের গুরুতর আহত অবস্থায় গাজীপুরে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

আহত সাংবাদিক মো. আজহারুল হক বলেন, বাঘেরবাজার এলাকায় প্রকাশ্য জুয়া খেলা হয় এমন খবর পেয়ে বিভিন্ন ইলেট্রনিক মিডিয়া কজন সাংবাদিক ঘটনাস্থলে যাই। এসময় জুয়া খেলার চিত্র ধারণ করতে থাকলে জুয়াড়ি ও তাদের সহযোগীরা আমাদের ওপর হামলা চালায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গাজীপুরে ভাওয়ালের জঙ্গলে দীর্ঘদিন যাবৎ বেশ কিছু স্পটে অসামাজিক কর্মকান্ড জুয়া ও উলঙ্গ নৃত্য চলে আসছে। ঘটনাস্থলে একটি জুয়ার স্পট ছিল। ওই সাংবাদিকেরা জুয়ার ছবি তুলতে গেলে জুয়ার লোকজন তাদের মারপিট করে গুরুতর জখম করেন। সন্ত্রাসীরা তাদের ক্যামেরা ও অন্যান্য জিনিসপত্রও ছিনিয়ে নেয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ও স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে গাজীপুরে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। সেখান থেকে তাদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড হয়েছে।

এদিকে জুয়াড়িদের হামলায় তিন সাংবাদিক আহত হওয়ার খবর পেয়ে রাতে গাজীপুরের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক জামিল আহমেদ, গাজীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা আমানত হোসেন খান, গাজীপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. আমিনুল ইসলামসহ জেলায় কর্মরত বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকরা হাসপাতালে ছুটে যান।

এ সময় গাজীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেন।

অপর দিকে একটি বিশ্বস্থ সূত্র জানায়, জুয়ার মাঠ গুলো থেকে প্রভাবশীলী এক সাংবাদিক ৩২ জনের নামে দৈনিক চাঁদা উত্তোলন করতেন। সাংবাদিকদের ম্যানেজ করার নাম করে তিনি এ টাকা নিয়ে আসছিলেন ।

ঘটনার সময় ছবি তুলতে গেলে জোয়ারীরা দায়িত্বরত সাংবাদিকদের প্রথমে ছবি তুলতে বাধা দেন এবং সাংবাদিকদের উপর হামলা চালান। টাকা দিয়েও সাংবাদিকদের নিয়মিত আগমন হওয়ায় তা ঠেকাতে জুয়ারীরা ওই সন্ত্রাসী হামলা করে থাকতে পারেন বলে সূত্রের দাবি।