কিডনির ক্ষতি করে যেসব অভ্যাস

kidney-and-habit


স্বাস্থ্য ডেস্কঃ

শরীরের দূষিত বর্জ্য-পদার্থগুলো পস্রাবের মাধ্যমে বাইরে বের করে দেয় কিডনি। এটি হচ্ছে মূলত শরীরের ছাকুনি। শরীরের ক্যালসিয়াম এবং ফসফেটের মত খনিজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে কিডনি। এটি শরীরের সর্বত্র অক্সিজেন ও গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি বহন করে রক্তচাপ এবং শরীরের নানা ফাংশন নিয়ন্ত্রণেও ভূমিকা রাখে। তাই সুস্থ থাকার জন্য কিডনিকে সক্রিয় রাখা জরুরী। তবে এমন কিছু কাজ আছে যা নিয়মিত করলে কিডনির মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। ন্যাশনাল কিডনি ফাউন্ডেশন ২০১১ ক্লিনিক্যাল মিটিং-এর একটা গবেষণায় দেখা গেছে, স্থূলতা, ধূমপান এবং ব্যায়ামের অভাবে শতকরা ৩০০ ভাগেরও বেশি মানুষ কিডনি রোগের ঝুঁকিতে থাকেন।

জেনে নিন কিডনির ক্ষতি হয় কোন কোন অভ্যাসেঃ

পস্রাব আটকে রাখাঃ
অনেকেই আছেন যারা দীর্ঘ সময় ধরে পস্রাব আটকে রাখেন। এটা ঠিক নয়। প্রতিদিন এই কাজটি করলে তা কিডনিতে মারাত্মক প্রভাব ফেলে। এতে কিডনির ক্ষতি হতে পারে। কাজেই কিডনির ক্ষতি থেকে বাঁচতে পস্রাব চাপ দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে তা ত্যাগ করুন।

পর্যাপ্ত পানি পান না করলেঃ
কিডনিতে বড় ধরনের ক্ষতি এড়াতে পর্যাপ্ত পানি পানের কোন বিকল্প নেই। কিডনিই শরীর থেকে বিপাকীয় বর্জ্যগুলো বের করে দিতে ভূমিকা রাখে। পানি কম পান করলে কিডনিতে রক্তের প্রবাহ কমে যায়। এতে কিডনি নানা জটিলতায় ভুগতে পারে। কাজেই সুস্থ থাকতে প্রচুর পানি পান করুন।

ধূমপান করলেঃ
এটি আর্থোক্লোরোসিসের সঙ্গে সম্পর্কিত। এর ফলে রক্তনালী শুরু হয়ে আসে। ফলে শরীরের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গে রক্ত চলাচলে ব্যাঘাত ঘটে। এতে কিডনির মারাত্মক ক্ষতি হয়। কাজেই কিডনি রোগের ঝুঁকি এড়াতে ধূমপান এড়িয়ে চলাই ভালো।

বেশি লবণ খেলেঃ
লবণ শরীরের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে অতিরিক্ত লবণ রক্তচাপ বাড়াতে মূখ্য ভূমিকা পালন করে। শুধু তাই নয়, এটি কিডনির উপরও ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে। তাই অতিরিক্ত লবণ খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।

অতিরিক্ত মদ্যপান করলেঃ
মাত্রাতিরিক্ত কোন জিনিসই ভালো নয়। অতিরিক্ত মদ্যপান করলে তা কিডনি এবং যকৃতের উপর মারাত্মক চাপ সৃষ্টি করে। ফলে সহজেই কিডনি নানা রোগে আক্রান্ত হয়। কাজেই রোগের হাত থেকে বাঁচতে অতিরিক্ত মদ্যপানও এড়িয়ে চলুন। সুস্থ থাকুন।