শোবার আগে যে ৭ টি খাবার খেলে আপনার ওজন কমবে

reducing-weight-by-7-diets


লাইফস্টাইল:

সাধারণভাবে রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে বেশির ভাগ খাবারই খেতে মানা করা হয়ে থাকে, কারণ স্বাস্থ্যের জন্য এটা ভালো অভ্যাস না। বিশেষ করে এই অভ্যাসের জন্য ওজন বৃদ্ধি পায় এবং খাবারগুলো সহজে হজম হয় না। তবে খুব বেশি ক্ষুধার্ত থাকলে এবং এই কারণে যদি ঘুমাতে না পারেন তাহলে তো খেতেই হবে। এর জন্য বেশ কিছু খাবার আছে যেগুলো ঘুমাতে যাবার আগে খেতে পারেন। আজ এমন কিছু খাবারের কথা উল্লেখ করা হলো যে খাবারগুলো কোন চিন্তা না করেই খেতে পারেন। এগুলো কেবল ক্ষুধাই মেটাবে না, বরং ওজন কমাতেও সাহায্য করবে!

নন ফ্যাট টক দই বা সাওয়ার ক্রিম
যদি ঘুমাতে যাবার আগে খুব বেশি ক্ষুধা পায় তাহলে খেতে পারেন এক কাপ টক দই বা সাওয়ার ক্রিম।এই দুইটির পার্থক্য হচ্ছে টক দই ফার্মেন্টেড দুধ থেকে তৈরি হয় আর সাওয়ার ক্রিম ফার্মেন্টেড ক্রিম থেকে তৈরি হয়। ঘুমাতে যাওয়ার আগে যদি দই খান তাহলে তা দেহের আভ্যন্তরীণ কার্যক্রমের জন্য যে প্রোটিন প্রয়োজন তার চাহিদা মেটাবে এবং সহজে ঘুমাতে সাহায্য করবে। কারন এগুলোতে থাকা প্রোবায়োটিক অন্ত্রের কাজকে সহজ করে।

মুরগির মাংস
এছাড়া রাতের খাবার হিসাবে ২ টুকরো বেক বা সিদ্ধ মুরগির মাংস খেতে পারেন। এর ফলে কম ফ্যাট যুক্ত উচ্চ মানের প্রোটিন খাবার খাওয়া হবে।

পনির
রাতে এক স্লাইস শক্ত পনির আপনাকে তৃপ্তি এনে দিতে পারে। এটি মাত্র ৮০ ক্যালরি আর আমাদের দেহের ক্যালসিয়ামের চাহিদা পূরণ করতে সাহায্য করবে।

ফ্যাট ফ্রি চকলেট পুডিং
রাতের বেলা ক্ষুধা পেলে আপনি চাইলে কিছুটা ফ্যাট ফ্রি চকলেট পুডিং খেতে পারেন যা আপনাকে পেট ভরা থাকার অনুভূতি দিতে পারবে ওজন বৃদ্ধি করা ছাড়াই।

আপেল ও পিনাট বাটার
রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে খেতে পারেন একটি আপেল। আপেল খাদ্য আঁশে পরিপূর্ণ থাকে যা আপনার ক্ষুধা কমাতে সাহায্য করবে। এছাড়া যদি কোন মিষ্টি খাবার খেত ইচ্ছে করে তাহলে খেতে পারেন একটু পিনাট বাটার যা মিষ্টি খাবার ইচ্ছাকে কমিয়ে দেবে।

ওটমিল
রাতের খাবারের জন্য আদর্শ হতে পারে ওটমিল।এক বাটি ওটমিলে প্রায় ২০০ ক্যালরির মত থাকে। এটি খুব সহজে হজম হয় এবং পেটে ব্যথা থাকলে তাও ভালো করবে।

কলা
কলা হচ্ছে এমন একটি সম্পূর্ণ ফল যা ঘুমাতে যাওয়ার আগে আপনার ক্ষুধা মেটাতে পারে। এই ফলটি রাতে খাওয়ার সবচেয়ে ভালো দিক হচ্ছে এটি আপনার ওজন বৃদ্ধি করবেনা এবং সেই সাথে কোমরের মেদও বাড়াবে না।