জোয়ারের পানিতে তলিয়ে যায় খেয়াঘাট, যাত্রীদের দুর্দশা আর ভোগান্তি প্রতিকারে নেই কোন উদ্যোগ

জাহিদ রিপন, পটুয়াখালী প্রতিনিধি-


rasta

পটুয়াখালী-কুয়াকাটা মহাসড়কের কলাপাড়ার সাথে যোগাযোগ রক্ষাকারী বালিয়াতলী খেয়াঘাট ৪/৫ ফুট জোয়ারের পানিতে তলিয়ে যায়। ফলে হাটু থেকে কোমড় অবধি পানি পেড়িয়ে খেয়া নৌকায় উঠতে হয়।

বালিয়াতলী খেয়া ঘাটের এ দৃশ্য একযুগ ধরে চলে আসলেও, দেখার যেন কেউ নেই। খেয়া পাড়াপাড়ের যাত্রীদের এই দুর্দশা আর ভোগান্তি প্রতিকারে নেই কোন উদ্যোগ।

জোয়ারের পানিতে বালিয়াতলী খেয়াঘাট তলিয়ে যাওয়ায় বালিয়াতলী, লালুয়া, ধুলাসার, মিঠাগঞ্জ, ডাবলুগঞ্জ ইউনিয়নের (পাঁচটি) প্রায় পঞ্চাশ হাজার মানুষ কাজ এবং সময়ের গুরুত্ব বিবেচনায় প্রতিনিয়ত চরম ঝুকি নিয়ে জোয়ারের পানি মাড়িয়ে চলাচল করছে মানুষ। এত করে কমবেশি প্রতিদিনই আনেক মানুষ এতে যেমন আহত হচ্ছেন, তেমনি মোটর সাইকেল পাড় করতে গিয়ে হরহামেশাই ঘটছে দুর্ঘটনা।

index

বাধ্য হয়ে পাঁচ টাকায় খেয়া পারাপারের পর অতিরিক্ত আরো পাঁচ টাকা খরচ করে পন্টুন থেকে তীরে আসছে এবং তীর থেকে পন্টুনে উঠছে। এতে অতিরিক্ত অর্থ খরচের পাশাপাশি বাড়ছে জনদূর্ভোগও।

বালিয়াতলী খেয়াঘাটের ইজারাদার জানান, পন্টুনের গ্যাংওয়ে এবং খেয়াঘাটের রাস্তা ৪/৫ ফুট জোয়ারের পানিতে তলিয়ে থাকায় বাধ্য হয়েই আমাদের ট্রলার যাত্রীদের নিয়ে পন্টুনে ভিড়াতে হচ্ছে।

এদিক, একটি প্রকল্পে আওতায় নিয়ে খেয়াঘাট উচু করনের কাজ অতি দ্রুত শুরু হবে এমটাই জানালেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোতালেব তালুকদার।