ইউরোপে রোজা ১৯ -২২ ঘণ্টা ,সৌদি আরবে ১৩-১৪ ঘণ্টা ,সামঞ্জস্য করতে ধর্মের ব্যাখ্যা কি ?

dhormer bekkha ki

 আন্তর্জাতিক ডেস্ক –   ইউরোপের মুসলমানরা রোজা রাখছেন দেশ ভেদে ১৯ থেকে ২২ ঘণ্টা  ,কিন্তু ইসলামের উৎপত্তি যেখানে সেই সৌদি আরবেই মানুষ  ১৩-১৪ ঘণ্টা রোজা রাখছে ।  ইউরোপে রোজার সময়কে সামঞ্জস্য করার কোনো রাস্তা আছে কিনা, এ নিয়ে ধর্মের ব্যাখ্যা কি – এসব নিয়ে ইউরোপের মুসলিমদের কেউ কেউ বিচ্ছিন্নভাবে প্রশ্ন করেন।

ব্রিটেনে এবার রোজার শুরুর দিনেই সেহেরির শেষ সময় থেকে ইফতারের সময় ১৯ ঘণ্টা। ইউরোপের উত্তরের দেশগুলোতে যেমন, সুইডেন, ডেনমার্ক, নরওয়েতে এই ব্যবধান আরো বেশি, ২০ থেকে ২১ ঘণ্টা।

ইউরোপে মুসলিম জনগোষ্ঠীর সংখ্যা এখন কম-বেশি সাড়ে চার কোটি। এই সংখ্যা বাড়ছে। কিন্তু যেসব দেশ থেকে তারা এসেছেন, ভৌগলিক অবস্থানের কারণে সেসব দেশের তুলনায় ইউরোপে সূর্যোদয় এবং সূর্যাস্তের মধ্যে ব্যবধান অর্থাৎ দিন-রাতের সময় অনেকটাই আলাদা।সে কারণে গরমের রোজা ১৯-২০-২১ ঘণ্টা।

কিন্তু বছর দুয়ের ধরে প্রকাশ্যে কথা বলছেন ব্রিটেনের বিতর্কিত এক ইসলামি চিন্তাবিদ, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক ড: উসামা হাসান। তার কথা- ভোর থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত না খেয়ে থাকার প্রথা মানার প্রয়োজন ইউরোপে নেই। বরঞ্চ মক্কা-মদিনার মানুষ যত ঘণ্টা রোজা রাখেন, ইউরোপে সে মতই রোজা হতে পারে। তাতে ইসলামের বিধান ভঙ্গ হবেনা, বরঞ্চ সেটাই ইসলামের বিধান।

সুত্র – বিবিসি