লিফট ছিঁড়ে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড: নিহতের সংখ্যা বেড়ে ছয়

সময়ের কণ্ঠস্বর – রাজধানীর উত্তরায় আলাউদ্দিন টাওয়ার নামে এক শপিংমলে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। ভবনের লিফট ছিঁড়ে আগুনের সূত্রপাত হয় বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় ছয় জনের মৃত্যু এবং কমপক্ষে ২৫জন আহত ও ৪ জন দগ্ধ হওয়ার খবর জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ। আগুনে দগ্ধ হওয়া চারজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে তিনজন একই পরিবারের।

আজ শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ১৬তলা ভবনের ছয়তলায় লিফট ছিঁড়ে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। তবে নিহতদের নামপরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে পারেনি পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস।

ঢাকা মহানগর পুলিশের উত্তরা বিভাগের উপ-কমিশনার বিধান ত্রিপুরা বলেন, মার্কেটে আগুন লাগার ঘটনায় এ পর্যন্ত ছয়জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

‘সন্ধ্যার দিকে পাঁচজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে রাত সাড়ে নয়টার দিকে বেইজমেন্ট থেকে আরো একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।’

ognikando-uttoraপুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস জানায়, সন্ধ্যায় হঠাৎ করে ওই ভবনের ক্যাপসুল লিফটটির তার ছিঁড়ে যায়। এ সময় বিকট শব্দে ভবনে আগুন ধরে যায়। তখন ভবনটির নিচতলায় ট্রপিক্যাল হোমস লিমিটেডের একটি ইফতার মাহফিল চলছিল।

এ সময় ওই অনুষ্ঠানে থাকা ট্রপিক্যাল হোমস লিমিটেডের সহকারী জেনারেল ম্যানেজার ইঞ্জিনিয়ার মাহমুদুল হাসান ও তার দুই ছেলে-মেয়ে দগ্ধ হন।

ছুটোছুটি করে বের হতে গিয়ে আহত হন রাজলক্ষ্মী মার্কেটের বিসমিল্লাহ মিষ্টির কর্মচারী মামুনও (২৮)।

ঢামেক বার্ন ইউনিটের চিকিৎসক পার্থ শঙ্কর পাল বলেন, দগ্ধ হওয়াদের মধ্যে ৫জন এখানে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে হাসানের ৮০ শতাংশ, তার মেয়ে মেহনাজ হাসান মায়শার ৪৪ শতাংশ ও আটমাস বয়সী ছেলে ম‍ুনতাকিন হাসানের ২৩ শতাংশ শরীর পুড়ে গেছে। তাদের শারীরিক অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক। চিকিৎসা চলছে।

দগ্ধ হাসানের পরিবারের সদস্যরা জানান, তাদের গ্রামের বাড়ি বগুড়া সদরে হলেও উত্তরা-১৩ সেক্টরে থাকেন। মাইশা উত্তরা মাইলস্টোন স্কুলে চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আলী আহম্মদ খান বলেন, অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে প্রায় একঘণ্টা বেশি চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। তবে উদ্ধার কাজ এখনো চলছে।

তবে নিহতদের নাম-পরিচয় এখনো জানা যায়নি বলে জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স নিয়ন্ত্রণ কক্ষের ডিউটি অফিসার মিজানুর রহমান।