পাবনায় সাঁথিয়া উপজেলা জামায়াতের আমির গ্রেফতার

আব্দুল লতিফ রঞ্জু, পাবনা প্রতিনিধি  পাবনার সাঁথিয়া উপজেলা জামায়াতের আমির ও পার গোপালপুর মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা আব্দুল কদ্দুস (৬০) কে গ্রেফতার করেছে সাঁথিয়া থানা পুলিশ। শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৩ টার দিকে সাঁথিয়া উপজেলার পৌর কাঁচা বাজার থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসেন।

arrestedপুলিশ জানায়, তার বিরুদ্ধে পাঁচটি মামলা ছিল। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত গ্রেফতারকৃত কে থানায় রেখে বিভিন্ন বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।
সাঁিথয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) নাসির উদ্দিন জানান, গ্রেফতারকৃত জামায়াত নেতার বিরুেেদ্ধ সন্ত্রাস, বোমাবাজি নাশকতাসহ পাঁচটি মামলা রয়েছে। মামলার ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

পাবনায় নববধূকে স্বামী কর্তৃক শ্বাসরোধ করে হত্যা

পাবনা প্রতিনিধি ঃ পাবনার ফরিদপুরে এক নববধুকে মারপিট ও শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে স্বামী। শুক্রবার পুলিশ লাশ উদ্ধার করে দুপুরে ময়না তদন্তের জন্য পাবনা মর্গে পাঠিয়েছে। ঘটনার পর থেকে স্বামী মামুন হোসেন পলাতক রয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে জেলার ফরিদপুর উপজেলার পার-ফরিদপুর গ্রামে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত নববধু হিমু খাতুন ফরিদপুর পৌর এলাকার থানাপাড়ার আব্দুল হান্নানের মেয়ে।

ফরিদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান জানান, ৪ মাস আগে হিমু খাতুনের পার্শ্ববর্তী ভাঙ্গুড়া উপজেলার পার ভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের হাটগ্রামের মামুন হোসেনের সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই তাদের মধ্যে বনিবনা হচ্ছিল না। এ নিয়ে তাদের মধ্যে দাম্পত্য কলহের এক পর্যায় বৃহস্পতিবার হিমুকে নিয়ে পার-ফরিদপুর গ্রামে নানার বাড়ি বেড়াতে যায় স্বামী মামুন। সেখানে স্ত্রী হিমুকে মারপিট ও শ্বাসরোধ করে হত্যার পর লাশ ঘরের আঁড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখে পালিয়ে যায় মামুন।

এ ঘটনায় হিমুর বাবা আব্দুল হান্নান বাদি হয়ে জামাই মামুন ও তার বাবা, মা, বোনসহ ৬ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নম্বর ৬। ঘটনার পর থেকে মামুন ও তার স্বজনরা পলাতক রয়েছে। তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।