পরকীয়ায় হাতেনাতে ধরা পড়ে স্বামীর ঘর ছাড়লেন গৃহবধূ

samir-ghor

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি: মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলা এলাকায় পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে অনৈতিক কাজ হাতেনাতে ধরা পড়ে স্বামীর ঘর ছেড়েছেন শারমিন বেগম (৪০) নামে এক গৃহবধূ। শনিবার সকালে খোলা তালাকের পর স্বামীর ঘর ছাড়েন তিনি।

এর আগে শুক্রবার রাতে প্রেমিক আবদুল আজিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অনৈতিক কাজে লিপ্ত অবস্থায় স্থানীয়দের হাতে ধরা পড়েন তারা। এ সময় প্রতিবেশী ২০-৩০ নারী শারমিনকে পিটুনি দেন।

ওই এলাকার বিল্লাল হোসেনের দ্বিতীয় স্ত্রী শারমিন পার্শ্ববর্তী দৌলতপুর উপজেলার চর ভারাঙ্গা এলাকার লোকমান হোসেনের মেয়ে। আর শিবালয়ের কৃষ্ণপুর এলাকার মৃত দেলখোস আলীর ছেলে আজিজ আরিচা ঘাটের মাসুদ মটরসের মালিক।

স্বজন ও স্থানীয়রা জানান, বড় স্ত্রী’র ঘরে বিল্লালের সাত মেয়ে। আর শারমিনের প্রথম স্বামীর ঘরে রয়েছে এক ছেলে। চার বছর আগে শারমিনকে বিয়ে করেন বিল্লাল। বিয়ের পর থেকে দ্বিতীয় স্ত্রী’কে আলাদা নিজেরই আরেকটি বাড়ি রেখে ঘর সংসার করছেন তিনি। ওই বাড়ির পাশেই যানবাহন মেরামত করার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আজিজের। বছর খানেক ধরে শারমিনের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন আজিজ।

বিষয়টি কিছু দিন ধরে টের পেয়ে প্রতিবেশীরা তাদের হাতেনাতে ধরার চেষ্টা করছিলেন। এরই মধ্যে শুক্রবার রাত সোয়া একটার দিকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে শারমিন ও আজিজ অনৈতিক কাজে লিপ্ত হন। বিষয়টি টের পেয়ে স্থানীয়রা তাদের হাতেনাতে ধরেন।

এ সময় উত্তেজিত প্রতিবেশী নারীরা শারমিনকে পিটুনি দেন। আর আজিজকে আটকে রাখেন স্থানীয়রা। এ ঘটনায় শনিবার সকালে স্থানীয় এসএম আব্বাসের অফিসে স্থানীয়দের উপস্থিতিতে কাজীর মাধ্যমে খোলা তালাক দেন শারমিন ও বিল্লাল।

এদিকে শিবালয় মডেল ইউনিয়ন পরিষদের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান আলাল উদ্দিনের উপস্থিতিতে এক ঘরোয়া সালিশ বড় ভাই আক্কাস আজিজকে চর-খাপ্পড় মেরে সকলের কাছে ক্ষমা ও এ ধরণের কাজ আর করবেন না বলে প্রতিজ্ঞা করান।