প্রেমের টানে ঘর ছেড়ে পালানো চতুর্থশ্রেনীর ছাত্রী রিয়ামনি রক্ষা পেলো যেভাবে

অবশেষে রক্ষা পেলো প্রেমের টানে ঘর ছেড়ে পালানো চতুর্থশ্রেনীর ছাত্রী রিয়ামনি !
নিজের ভুল বুঝতে পেরে অনুতপ্ত হয়েছে শিশুটি !
কথিত প্রেমিককে ছেড়ে বাবা-মায়ের সাথে গাইবান্ধা থেকে রাজধানীর পথে এইমুহুর্তে তারা

গাইবান্ধা প্রতিনিধি, সময়ের কণ্ঠস্বর :

‘প্রেমের টানে’ ঘড়  বাবা-মা পরিজন সবাইকে ছেড়ে প্রেমিক পুরুষের হাতধরে ঘর ছেড়ে পালিয়েছিলো ঢাকার রাজারবাগ আদর্শ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী রিয়া মনি।

তবে নিশ্চিত বিপদ আর ভবিষ্যৎ অন্ধকার থেকে আপাতত রক্ষা পেয়েছে শিশু রিয়া মনি। তাকে  উদ্ধার করেছে সাদুল্যাপুর উপজেলার রছুলপুর ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের এক উদ্যোক্তা সহ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যরা । পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে আজ শনিবার বিকালে শিশু রিয়া মনিকে (৯) তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

জানা গেছে,  সাদুল্যাপুর উপজেলার রছুলপুর গ্রামের আয়নাল হোসেন নামের এক যুবক ঢাকার কদমতলি রাজারবাগ এলাকায় একটি কারখানায় চাকরি করতো  । একই এলাকায় থাকার সুবাদে শিশু রিয়া মনি প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পরে আয়নাল হোসেনের সঙ্গে। বিষয়টি রিয়া মনির পরিবার জেনে গিয়ে বাধা দিলে গত ২০ জুন সে বাড়ী  ছেড়ে প্রেমিকের হাত ধরে পালিয়ে যায় ।

এরপর রিয়া মনি ও আয়নাল হোসেন দুজনেই বিয়ের উদ্দেশ্যে সাদুল্যাপুরে আয়নালের গ্রামের বাড়িতে আসেন । সেখানে  এফিডেফিটের মাধ্যমে বিয়ে করার জন্য  গতকাল ২৪ জুন রিয়া মনিকে ছবি তুলতে নিয়ে যায় রছুলপুর ইউনিয়ন ডেজিটাল সেন্টারে।

আর এতেই ঘটে বিপত্তি। ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা জাকারিয়া হাবিব জানান রিয়া মনির কাছে তিনি কৌশলে ছবি তোলার বিষয়টি জেনে নেন। পরে সেটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানালে তিনি ওই শিশুকে তার নিজের হেফাজতে  রাখতে বলেন। এসময় শিশুটিকে নিজের হেফাজতে রাখলেও কৌশলে চম্পট দেন কথিত প্রেমিক ।

somoyerkonthosor-exclusive

এরপর শিশুটির  পরিবারের কাছে যোগাযোগ করলে আজ  শনিবার ঢাকা থেকে সাদুল্যাপুরে আসেন রিয়া মনির চাচা আবদুর রহমান মিলন ও তার বন্ধু রাসেল আহম্মেদ। এরপর নির্বাহী কর্মকর্তার মধ্যস্থতায় সাদা কাগজে মুচলেকা নিয়ে  আজ শনিবার বিকেলে রিয়া মনিকে তাদের কাছে হস্তান্তর করা হয় তাদের কাছে ।

উদ্যোক্তা জাকারিয়া হাবিব সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, ” তার উপর অর্পিত দায়িত্ব থেকেই তিনি প্রশাসনকে জানিয়ে শিশু রিয়া মনিকে রক্ষা করেছেন।” হাবিব সময়ের কণ্ঠস্বরকে আরও জানান, শিশু রিয়ামনি তার ভুল বুঝতে পেরেছে । নিতান্তই আবেগের বশে ছুটে এসেছিলো প্রেমিকের হাত ধরে। এমন ভুল থেকে তাকে রক্ষার জন্য কৃতজ্ঞতাও জানিয়েছে সে ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহ্সান হাবিব সময়ের কণ্ঠস্বরকে  জানান, ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তার কারণে শিশু রিয়া মনি বড় ধরণের ক্ষতির কবল থেকে পেয়েছে।