গাইবান্ধায় ফেসবুক, ম্যাসেঞ্জার, থ্রি-জি পোশাক কেনার জন্য ক্রেতাদের হিড়িক!

FORHAD AKONDO GAIBANDA-01

ফরহাদ আকন্দ, গাইবান্ধা প্রতিনিধি: গত বছরের ঈদে তরুণীদের পোশাক বিক্রি হতো ভারতীয় টেলিভিশন বাংলা চ্যানেলের নায়িকাদের নামের ওপর ভিত্তি করে। যেমন- কিরণমালা, পাখী, জল নূপুর, ঝিলিক থ্রি পিস ইত্যাদি ইত্যাদি। এভাবেই ঈদের বাজারে প্রচুর টাকা বিক্রি করত পোশাক দোকানিরা।

কিন্তু এখন ডিজিটাল সময়, বদলে গেছে অনেক কিছুই। সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে বিজ্ঞানের উৎকর্ষতার ডিজিটালাইজ এ যুগে বিস্তার ঘটেছে পোশাকেও। আর তাই এবার ঈদ পোশাকে পড়ছে ডিজিটাল প্রভাব।

তরুণীদের পছন্দের তালিকায় এবার এসেছে দেশি ফেসবুক, ম্যাসেঞ্জার, থ্রি-জি নামের থ্রি পিস। বর্তমান ক্রেতাদের চাহিদা মোতাবেক দোকানিরাও আমদানি করছে এমন পোশাক। গাইবান্ধার সাত উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে পাওয়া গেছে এমনি বিচিত্র কিছু তথ্য। প্রকারভেদে ডিজিটালাইজ এ পোশাক গুলি পাওয়া যাচ্ছে ২ থেকে ৫ হাজার টাকায়। পোশাকের রং যাই হোক না কেন দাম কিন্তু একই। ঈদের আরো বেশ কিছুদিন বাকি থাকলেও ধীরে ধীরে ক্রেতাদের সমাগমে মুখরিত হয়ে উঠছে এসব পোশাক মার্কেটের দোকানগুলো। কাশ্মিরি, বাহুবলি পোশাকও বিক্রি হচ্ছে এসব পোশাক মার্কেটের দোকান গুলিতে। তবে বিক্রেতারা জানিয়েছেন বর্তমানে ক্রেতাদের সমাগমে ধীরে ধীরে পোশাক বিক্রি হলেও রোজার শেষ দিনগুলো পুরোদমে এসব পোশাক বিক্রির হার বেড়ে যাবে।

সালিমার সুপার মার্কেটের সাহাবুল নামে এক পোশাক বিক্রেতা ‘সময়ের কণ্ঠস্বর’ কে জানান, ধীরে ধীরে চলছে ঈদের বেচা-কেনা। তবে আর মাত্র কয়েকদিনের মধ্যেই ক্রেতাদের উপচে পড়া ভীড় সামলাতে হবে। এবার কিরণমালার মতো কি কি পোশাক বিক্রির জন্য আনা হয়েছে জানতে চাইলে তিনি জানান, বাহুবলি ও কাশ্মিরির পাশাপাশি ফেসবুক, ম্যাসেঞ্জার, থ্রি-জি নামের পোশাক আনা হয়েছে।