সিরাজদিখানে রাস্তার উপর অবৈধ ড্রেজিং পাইপ

munshigonj

মোঃ রুবেল ইসলাম, মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: সিরাজদিখান উপজেলার রাস্তার উপর যেখানে সেখানে অবৈধ ড্রেজিংয়ের পাইপ স্থাপন করা হয়েছে। এমন কি রাস্তার মোড়ের মধ্যেও অবৈধ ড্রেজিংয়ের পাইপ স্থাপন করা হয়েছে। ইতিমধ্যে কিছু ছোট ছোট দুর্ঘটনা ঘটেছে। যেকোন সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। বছর খানেক আগে মধ্যপাড়া ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক ইমতিয়াজ নিমতলা থেকে রাতে বাড়ি ফেরার পথে ডেজিং পাইপের কারণে দুর্ঘটনায় তার মৃত্যু হয়।

থানা রোড ভূমি অফিসের সামনে স্থাপিত অবৈধ ড্রেজিংয়ের পাইপ গত ১৯ জুন ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বেগম শাহিনা পারভীন রাস্তার উপর পাইপ অপসারণ করান। এ সময় উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) বেগম শাহিনা পারভীন সাংবাদিকদের বলেছিলেন, যদি জনগন চলাচলের রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয় তাহলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ততক্ষনাৎ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারবেন। তিনি আরো বলেছিলেন এখানে কাউকে উপস্থিত না পাওয়ায় জরিমানা করা যায়নি তবে এ ব্যাপারে একটি মামলা করা হবে। এখন পর্যন্ত থানায় কোন মামলা হয়নি।

স্থানীয় প্রভাবশালীরা আদালতের আদেশ উপেক্ষা করে রাতের আধারে সেই অবৈধ পাইপ সহ আরো ১১ টি পয়েন্টে অবৈধ পাইপ স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়া উপজেলার তালতলা, মধ্যপাড়া, রাজদিয়া, বয়রাগাদি, বাড়ৈপাড়া, নাটেশ্বর, ইছাপুরা, সন্তোসপাড়া থানার মোড়, আবির পাড়া, চোরমদ্দন, ইমামগঞ্জ, রাজানগর শেখের নগর, লতব্দী, বালুচর ইউনিয়ন সহ উপজেলার বিভিন্ন রাস্তায় শতাধিক অবৈধ ড্রেজিং পাইপ স্থাপন করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে রাস্তার উপর অবৈধ পাইপ অপসারণ করা হলেও তা না কমে দিন দিন আরো বেড়ে চলেছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট বেগম শাহিনা পারভীন টেলিফোনে সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, আমি মোবাইল কোর্ট করে উচ্ছেদ করেছি। মামলার এজাহার পাঠিয়েছি, পুলিশ কি ব্যবস্থা নিয়েছে জানিনা। আমি টেনিংএ আছি এসে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

সিরাজদিখান থানা ওসি (প্রশাসন) ইয়ারদৌস হাসান সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, তিনিতো কোন মামলা দেননি আমরা কি মামলা নেব। তিনি উচ্ছেদ করেছেন এরপর কি মামলা হয়। তাকে বলেন তিনি কি ব্যবস্থা নিবেন।