‘ক্ষমতায় থেকে জঙ্গিবাদকে মদদ দিয়েছেন খালেদা জিয়া’

সময়ের কণ্ঠস্বর – ক্ষমতায় থেকে জঙ্গিবাদকে মদদ দিয়েছেন বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া এমন মন্তব্য করে নৌ ও পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, ‘ দেশে জঙ্গিবাদের উত্থান কিভাবে হয়েছিল এই দেশের মানুষ সেটা জানে। খালেদা জিয়া যখন ক্ষমতায় ছিলেন এই জঙ্গিবাদকে তিনিই মদদ দিয়েছেন, তিনিই সৃষ্টি করেছেন। ১৯৭১ সালে জামাতে ইসলাম রাজাকার আলবদর সৃষ্টি করে বাংলার ৩০ লাখ মানুষকে খুন করেছে।

আজ রোববার সংসদে বাজেট অধিবেশনে প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়াকে এই যুগের ঘষেটি বেগম আখ্যা দিয়ে নৌ মন্ত্রী বলেন, ‘নবাব সিরাজদৌল্লাহকে হত্যা করতে সব খুনিরা একত্রিত হয়েছিল। তাদের মদদদাতা ছিল ঘষেটি বেগম। বাংলার ষোল কোটি মানুষের নেত্রী, জঙ্গিবাদ মোকাবিলা করার নেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে সব খুনিরা আজ একত্রিত হয়েছে। আর তাদের নেত্রী হয়েছেন খালেদা জিয়া।

মুসলিম লীগ শান্তি কমিটি গঠন করে পাকিস্তানিদের পক্ষ নিয়েছে। নেজামে ইসলাম মুজাহিদী ইসলাম গঠন করে পাকিস্তানিদের পক্ষ নিয়েছে। ৭৫ এর খুনিরা এবং ১৯৭২ সালের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সাত ছাত্রকে গুলি করে হত্যায় নেতৃত্বদানকারীসহ সব খুনিরা আজ একত্রিত হয়েছে। আর তাদের নেত্রী হয়েছেন খালেদা জিয়া। সুতরাং খালেদা জিয়া এই যুগের ঘষেটি বেগম।’

shahajahan-nou-montri-songsod

জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ বিশ্বের কাছে এক চ্যালেঞ্জ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায়ে যেখানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ আজ হিমশিম খাচ্ছে, সেখানে শেখ হাসিনা বাংলাদেশের মানুষকে সম্পৃক্ত করে প্রশাসনের কঠোর মনোভাব এবং সরকারের জিরো টলারেন্সের মাধ্যমে জঙ্গিবাদ দমনে কাজ করে চলেছে। তা বিশ্বের কাছে সমাদৃত হয়েছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘এই ষড়যন্ত্রকে মোকাবিলা করার জন্য বাংলার শ্রমিক, কর্মচারী, সৈনিক, পেশাজীবী, মুক্তিযোদ্ধাসহ সকল শ্রেণী পেশার মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। জঙ্গিবাদকে মোকাবিলা করার জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করছে।’

এ সময় তিনি আরো বলেন, ‘বর্তমান সরকারের আমলে নৌ-মন্ত্রণালয় যে উন্নয়ন সাধন করেছেন, তা শতবর্ষের রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। পায়রা বন্দর হবে আরেক বিস্ময়। ২০১৮ সালের মধ্যে জেটি নির্মাণ করে সেখানে কাজ শুরু করা হবে।