বেড়েছে যাত্রী চাপঃ ঢাকা-সৈয়দপুর রুটে বিমানের টিকিটের জন্য হাহাকার

saiyu

মোঃ মহিবুল্লাহ্ আকাশ, স্টাফ করেসপন্ডেন্টঃ আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বিমানের অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট বাড়লেও টিকিট পাওয়া যাচ্ছে না। কয়েকগুন বেশি দামেও মিলছে না কাঙ্খিত ফ্লাইটের টিকিট।

সূত্রে জানা যায়, রমজানের শুরুতেই অভ্যন্তরীণ রুটে তৈরি করা হয় কৃত্রিম টিকিট সংকট। সংকট তৈরি করে ৩২শ টাকার টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে ১২ হাজার টাকা পর্যন্ত। বিভিন্ন এয়ারলাইন্স অফিস ও তাদের বিক্রয় কেন্দ্র ঘুরে জানা গেছে, শুধু ঈদুল ফিতর নয় ঈদুল আজহারও টিকিট আগাম বিক্রি হচ্ছে। চাপ এতটাই বেশি যে, আকাশপথে দেশের সব বিমান পরিবহন সংস্থার ৯০ শতাংশ টিকিট এরই মধ্যে বিক্রি হয়ে গেছে। কেবল ভিভিআইপি ছাড়া এখন আর কারো পক্ষে উড়োজাহাজের টিকিট সংগ্রহ করা সম্ভব হচ্ছে না।

ব্যবসায়ী আলভীর বাড়ি সৈয়দপুরে। স্বজনদের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করতে গত ঈদে বাসায় এসেছিলেন বাসে। কিন্তু এবার বাস ও ট্রেনের টিকিট না পেয়ে বিমানেই যাত্রার আশায় আসেন বিমান বাংলাদেশ এযারলাইন্সের মতিঝিলস্থ অফিসে। সেখানেও টিকিট না পেয়ে হতাশ হয়ে বাসায় যাওয়ার চিন্তা করছিলেন। এ সময় বিমানেরই এক চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীর সহায়তায় ঢাকা সৈয়দপুর রুটের দুটি টিকিট কেনেন চার গুন দামে। জানালেন ৩২শ টাকার টিকিট কিনেছেন ১২ হাজার টাকা দিয়ে।

অভ্যন্তরীণ রুটে বাংলাদেশ বিমানের পাশাপাশি ইউএস বাংলা, নভোএয়ার-এর ফ্লাইট চলাচল করছে।  নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর প্লাজায় নাম প্রকাশ না করার শর্তে একটি বেসরকারি এয়ারলাইন্সের এক কর্মকর্তা বলেন, আমাদের হাতে এখন আর চড়া দামেও টিকিট নেই। ঈদ উপলক্ষে অতিরিক্ত কয়েকটি ফ্লাইটের ব্যবস্থা করায় আমরা কিছু টিকিট বেশি দামে হলেও বিক্রি করতে পারছি।

নভোএয়ারের সেলস ও মার্কেটিং বিভাগের ম্যানেজার একেএম মাহফুজুল আলম সময়ের কণ্ঠস্বর-কে বলেন, ঈদের কারণে আকাশপথে যাত্রীদের চাপ বেড়েছে। অতিরিক্ত ফ্লাইট বাড়িয়েও আসন সংকুলান করা সম্ভব হচ্ছে না। তিনি জানান, ঈদে সব এয়ারলাইন্স টিকিটের মূল্য কিছুটা বাড়িয়ে থাকে।