‘এই জাদুকর’ ছাড়া আর্জেন্টিনা দল কল্পনাও করা যায় না, অবসর ভেঙে ফিরবেন মেসি?

messi_b

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক- ফুটবল দুনিয়াতে এর থেকে বড় কষ্টের খবর বুঝি আর পায়নি ফুটবল সমর্থকরা। মাত্র ২৯ বছর বয়সেই আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় জানালেন সর্বকালের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় লিওনেল মেসি। শতবর্ষী কোপা আমেরিকার ফাইনালে চিলির কাছে টাইব্রেকারে হেরে টানা তিন বছর ফাইনালে স্বপ্ন ভঙ্গ হয় আর্জেন্টিনার। আর এই দুঃখ এবং ক্ষোভ থেকেই অবসরের ঘোষণা দেন ‘ফুটবল জাদুকর’ মেসি।

কান্নাবিজড়িত কন্ঠে বললেন, ‘জাতীয় দলে আমি নিজের শেষ দেখে ফেলেছি। এই নিয়ে চারটা ফাইনাল হল। আর কত! এটা আমার জায়গা নয়। আমার মনে হয়, আমি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছি।’

তবে মেসির এ প্রতিক্রিয়াকে সাময়িক উত্তেজনা এবং অতিরিক্ত আবেগ প্রবণ হয়ে পড়া হিসেবে দেখছেন তারই জাতীয় দলের দুই সতীর্থ সার্জিও আগুয়েরো এবং সার্জিও রোমেরো। তারা মনে করছেন, অনেকটা আবেগ প্রবণ হয়েই মেসি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তাই সে দ্রুতই এ সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসে আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিরবেন।

মেসি এই সিদ্ধান্তে অটল থাকবেন না বলেই মনে করেন ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের দল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের গোলরক্ষক রোমেরো, ‘আমি মনে করি, লিও আবেগময় হয়ে এটা বলেছে। কারণ, ভালো একটি সুযোগ ফসকে যেতে দিয়েছি আমরা। আমাদের মতো একই ভাবনা তার।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমি মেসিকে ছাড়া জাতীয় দল কল্পনাই করতে পারছি না।’

সতীর্থ আগুয়েরোর কথায় ফুটে উঠলো ড্রেসিংরুমে মেসির বেদনার রূপটি, ‘দুর্ভাগ্যবশত, পেনাল্টি মিস করার জন্য সবচেয়ে বেশি ভেঙে পড়েছে মেসি। ম্যাচ শেষে ড্রেসিংরুমে তাকে এর চেয়ে বাজে অবস্থায় আমি আর দেখিনি।’

এদিকে মেসির অবসরের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাকে মাঠে ফেরত আসার অনুরোধ জানিয়েছেন ২০০৮ থেকে ২০১০ পর্যন্ত আর্জেন্টিনার কোচ থাকা ম্যারাডোনা। তিনি চান মেসি ২০১৮ বিশ্বকাপ পর্যন্ত দলের সঙ্গে খেলুক।

আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ জয়ী তারকা ম্যারাডোনা বলেন, ‘মেসিকে জাতীয় দলের সঙ্গে থাকতে হবে। বিশ্বকাপ জয়ের জন্য তাকে রাশিয়া যেতে হবে। তাকে দলের অন্য ছেলেদের ওপর ভরসা রাখতে হবে। আমরা আমাদের ফুটবলের ধ্বংস দেখতে চাই না।’

মেসির ফিরে আসা প্রসঙ্গে আর্জেন্টাইন প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘জাতীয় দলের পারফরম্যান্সে আমি গর্বিত এবং আমি মেসিকে বলছি কোন ধরনের সমালোচনা শোনার দরকার নেই। আমি চাই বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়টি আরো অনেক বছর দেশের হয়ে খেলুক।

২০০৫ ও শুরু করেছিলেন আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার। বহু সাফল্যের কারিগর মেসি দেশকে কিছু দিতে পারেননি বলে দুয়োধ্বনি শুনতে হয়েছে সব সময়ই। ভেবেছিলেন বদলে দেবেন সব ধারণা। কিন্তু শেষ বেলায় হতাশাই জুটলো তার ভাগ্যে। দেশের জার্সি খুলে রাখলেন নিজের ১১৩তম ম্যাচে। অবশ্য সঙ্গে রয়ে গেল দেশের হয়ে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতার রেকর্ড।

এর আগেও মেসি একবার বেসরকারিভাবে দেশের জার্সি গায়ে না তোলার কথা জানিয়ে দিয়েছিলেন। সেই সময় আর্জেন্টিনা ফুটবল ফেডারেশনের কিছু কর্তার মধ্যস্থতায় মেসি দেশের হয়ে খেলতে ফের রাজি হয়েছিলেন। কিন্তু, এবার কি সত্যি সত্যি মেসির অবসরের ঘোষণাকে প্রত্যাহার করানো যাবে? আর্জেন্টিনা ফুটবল ফেডারেশন কোন পথে হাঁটবে? এখন সেই দিকেই তাকিয়ে মেসির ভক্তকূল।