সেহরিতে খাবারের যে অসাধারণ মিশেল আপনার ওজন কমিয়ে দেবে সহজেই

mixed-food-reduces-fat


লাইফস্টাইলঃ

অ্যাভোকাডোর তেল তো অনেক খাবারেই ব্যবহার করে থাকেন আপনি। সবুজ রংয়ের শাকও নিশ্চয় খুব একটা কম খাওয়া হয়না। কিন্তু কখনো কি ভেবেছেন যে এদুটোর মিশ্রণ আপনার শরীরের জন্যে অসম্ভব ভালো কোন ফলাফল নিয়ে আসতে পারে? কোনভাবেই দূর্বল না করে ফেলে আপনার শরীরকে নিজেদের ভেতরে থাকা খাদ্যপ্রাণ আর ক্ষুধা কমিয়ে দেওয়ার উপাদানের যোগান দিয়ে করে তুলতে পারে আরো সুন্দর, আরো কমনীয় এবং আরো একটু বেশি কম ওজনের? অবাক হলেন? তাহলে আপনার জন্যেই নীচের এই খাবারের মিশেলগুলো। যেগুলোর মাধ্যমে কোনভাবেই নিজেকে অসুস্থ করে না দিয়েই শরীরের ওজন কমিয়ে ফেলতে পারবেন আপনি।

১. টুনা মাছ ও আদা সুশি রেষ্টুরেন্টগুলোতে সবসময়েই খাবারের সাথে আদা পরিবেশন করে। কেন বলুন তো? কারণ, এই আদা আপনার গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা দূর করে দিয়ে সেসব ব্যাপারকেও শরীরের ভেতর থেকে প্রতিহত করে যেগুলোর দ্বারা শারিরীক প্রদাহের খুব জোর সম্ভাবনা রয়েছে। আর এই আদার সাথে যদি ওমেগা-৩ সমৃদ্ধ টুনা মাছ মেশান আপনি তাহলে আদার উপকরিতাতো বটেই, সেইসাথে টুনা মাছের ভেতরে থাকা পেটের চর্বি বাড়তে না দিয়ে সেটাকে কমানোর মতন উপকারিতাও যুক্ত হবে এটার সাথে। ফলে কোনরকম সমস্যা ছাড়াই নিজের পেটের চর্বি কমিয়ে ফেলতে পারবেন আপনি।

২. শাক ও কলা সবুজ কলা প্রতিরোধক শর্করাতে ভর্তি থাকে। যেটা শরীরকে খুব সহজেই খাবার হজম করে ফেলতে বাঁধা প্রদান করে। ফলে খাবার অনেকক্ষণ পেটে থাকে এবং সেটাকে হজম করতে বেশ খানিকটা অতিরিক্ত শক্তি খরচ হয় শরীরের। শরীর এক্ষেত্রে ব্যবহার করে নিজের অতিরিক্ত শক্তি- চর্বিকে। আর এটাতো খুবই স্বাভাবিক যে চর্বি কমে গেলে সেটা আপনার শরীরের ওজনের ওপরেও প্রভাব ফেলবে। তবে এই পদ্ধতিতে আরো একটু ভালো ফলাফল পেতে আপনি খানিকটা শাক মিশিয়ে নিতে পারেন এতে। কারণ, শাক মানুষের পেটে বেশ অনেকক্ষণ ধরে মজুদ থাকে। সুতরাং, বুঝতেই পারছেন। একদিকে ওজন কমে যাওয়া আর অন্যদিকে পেট ভরা থাকা- ওজন তো কমতে বাধ্য!

৩. গোলমরিচ ও মুরগীর মাংস গ্রীল খেতে খুব ভালোবাসেন? অবশ্যই খান সেটা। তবে তার আগে গ্রীল পুরোপুরি তৈরি হয়ে যাওয়ার একটু আগেই গ্রীলের ওপর খানিকটা গোলমরিচ ছড়িয়ে দিন। কারণ, প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবারের সাথে গোলমরিচের মিশেল শরীরের ক্যালোরি খরচকে সাধারনের চাইতে ৩৫ শতাংশ বাড়িয়ে দেয়। এছাড়াও গোলমরিচ বাদে মরিচকেও আপনি ব্যবহার করতে পারেন ভিটামিন সি এর খুব ভালো একটি উত্স হিসেবে। তবে মুরগী নয়, ডিম বা আলুর সাথে।

৪. সাদা চা ও লেবু হোয়াইট টি বা সাদা চা শরীরের চর্বিকে আলগা করে দেয় শরীর থেকে। সেইসাথে জমে থাকা বাড়তি স্নেহ পদার্থকে ভেঙে শক্তিতে পরিণত করার কাজ তরান্বিত করে এটি। রোধ করে নতুন করে শরীরে চর্বি জমতে দেওয়ার কার্যক্রমকেও। আর এই অসাধারনক ওজন কমাতে সাহায্যকারী পানিয়ের সাথে যদি স্নেহ পদার্থকে কাটতে সাহায্যকারী ভিটামিন সিতে পূর্ণ লেবু মিশিয়ে দেন আপনি তাহলে তো কোন কথাই নেই। ২৫ শতাংস বেড়ে যায় এক্ষেত্রে পানীয়টির কার্যক্ষমতা।.