SOMOYERKONTHOSOR

আশুলিয়ায় অবশেষে সিকিউরিটি গার্ডের টাকা ছিনিয়ে নিল হলুদ সাংবাদিক: থানায় অভিযোগ

সাভার প্রতিনিধি: আশুলিয়ার নবীনগর (সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধ সংলগ্ন) এলাকায় মারধোর ও ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। কথিত সাংবাদিক সালমান ও মামুন, শ্রাবন সিকিউরিটি সার্ভিসের গার্ড সুপারভাইজার মোঃ শেখ জাফর (৫০) কে বেধড়ক পিটিয়ে বেতনের ১২০০০ টাকা ও জাফরের মোবাইল ফোনটি ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

রহমান শেখের ছেলে জাফরের গ্রামের বাড়ি রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানার টিকাপাড়ায়। জাতীয় স্মৃতিসৌধ সংলগ্ন জয় পর্যটন এলাকায় সিকিউরিটি গার্ডদের সুপারভাইজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জাফর বলেন, গত তিন চার মাস ধরে মামুন (সাভার প্রতিনিধি, দৈনিক প্রথম ভোঁর) ও সালমান (আশুলিয়া প্রতিনিধি, দৈনিক প্রথম ভোঁর) সাপ্তাহিক চাঁদা দাবী করে আসছিলো। “তারা বলতো তুই সারারাত ডিউটি করছ, রাতে এইখানে অবৈধ কাজ হয়। যেহেতু অবৈধ কাজ হয় সেহেতু আমগো ভাগ দিতে হইব”। আমি বলছি এখানে কোন অবৈধ কাজ হয় না তখন ওরা আমাকে ধমক দিয়ে বলতো না হইলেও দিতে হইব। দুই তিন দিন আগে আমাকে হুমকি দিয়ে যায়, “এর পরে যেদিন আসুম ঐ দিন টাকা না দিলে তোর হাড্ডি মাংস এক কইরা আশুলিয়া থানায় জমা দিমু দেহুম তোর ভাগা নিতে কে আসে”?

এরপর আজকে সন্ধার সময় সালমান ও মামুন আসে এবং টাকা চায় আমি বলছি আমার কাছে টাকা নাই। এই কথা বলার সাথে সাথে দুইটা চেয়ার দিয়া দুইজন এলোপাথারি মাইরা আমার বাম হাত ভাইঙ্গা দিছে। জোড় কইরা ১২০০০ টাকা আর মোবাইল নিয়া গেছে। জাফর কান্নাজড়িত কন্ঠে আহাজাড়ি করে “গার্ড বইলা আমরা মানুষ না, আমি কি এর বিচার পামুনা” ?

এদিকে শ্রাবন সিকিউরিটি সার্ভিসের এম ডি মোঃ এনামুল হক (বীর মুক্তিযোদ্ধা) আশুলিয়া থানায় অভিযোগ করতে এসে  আক্ষেপ করে বলেন, “এরা কোন ধরণের সাংবাদিক একজন প্রহরীর গায়ে হাত তুলে টাকা ছিনতাই করে মোবাইলটা পর্যন্ত নিয়ে যাবে, “এই জন্যই কি আমরা জীবনবাজী রেখে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছিলাম”।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মহসিনুল কাদির সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, অভিযোগ পেয়েছি অভিযোগ আমলে নিয়ে দ্রুত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।