ফল-সবজি ফরমালিন ও ব্যকটেরিয়ামুক্ত করবেন যেভাবে

wash-away-food-poisons


লাইফস্টাইলঃ

যেকোনো ফল খাওয়ার আগে বা সবজি কাটার আগে আমরা ধুয়ে নিই। ফল-সবজিতে ব্যবহৃত ফরমালিন ও ব্যাকটেরিয়া দূর করার কিছু নির্দিষ্ট নিয়ম রয়েছে।

ফল ও সবজিকে ব্যাকটেরিয়ামুক্ত করতে এবং এতে ব্যবহৃত পেস্টিসাইড দূর করতে কিছু টিপসঃ

সংরক্ষণের আগে ভেজানো যাবে নাঃ
ফল ও সবজি ফ্রিজে বা ঝুড়িতে সংরক্ষণ করার আগে ধোয়া যাবে না। এতে এসব খাবার দ্রুত পচে ও ব্যকটেরিয়া দ্বিগুণ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। শুধুমাত্র ব্যবহারের আগে ধুয়ে নিন।

বহিরাবরণ ফেলে দিনঃ
বাঁধাকপি, সেলারি, লেটুস, গাজর, নাশপাতি, আপেল ইত্যাদি ফল ও সবজির বাইরের আবরণ ও খোসা ফেলে দিন। কারণ, বাইরের স্তরেই বেশি ব্যকটেরিয়া থাকে।

আলাদা করে নিনঃ
স্তরীভূত সবজি যেমন বাঁধাকপি, লেটুস ইত্যাদির ভাঁজ খুলে নিন। বড় পাতা বা ছোট পাতা হিসেবে আলাদা করতে পারেন। কয়েক মিনিট ঠাণ্ডা পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। পেপার টাওয়েল দিয়ে অতিরিক্ত পানি মুছে নিন।

ভিনেগারঃ
ফল ও সবজি ধোয়ার সময় পানিতে ভিনেগার ব্যবহার করুন। ভিনেগার মেশানো পানিতে সাত থেকে আট মিনিট ফল ও সবজি ভিজিয়ে রাখুন। ভিনেগার ৯৫ শতাংশ ভাইরাস ও ৯০ শতাংশ ব্যকটেরিয়া মেরে ফেলে। বিশেষ করে আপেল খাওয়ার আগে এভাবে ধুয়ে নিতে পারেন। ফলমূলে চকচকে ভাব আনতে অনেক সময় ওয়াক্স লাগানো হয়। ভিনেগার ব্যবহারের ফলে ওয়াক্স গলে যায়। একই উপায়ে লবণ ব্যবহার করতে পারেন।

ব্রাশিংঃ
আলু, আপেল, গাজর, শসা ধোয়ার সময় নরম ব্রাশ ব্যবহার করুন। এতে খাবারের গায়ে লাগানো ওয়াক্স ও ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া দূর হবে।

টিপসঃ
• আঙুর ধোয়ার সময় পানি ও ভিনেগার ১:১/২ অনুপাতে নিন। এক চা-চামচ বেকিং সোডা ও দুই চা চামচ লেবুর রস ব্যবহার করুন। এতে ভাইরাস মরে যায়।
• অথবা এই উপকরণগুলো একসঙ্গে মিশিয়ে স্প্রে বোতলে রাখতে পারেন। ফল বা সবজি ধোয়ার সময় স্প্রে করে ব্রাশ করে নিন।