বদির দুর্নীতি মামলায় যুক্তিতর্ক ২০ জুলাই

সময়ের কণ্ঠস্বর – সরকার দলীয় সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদির অবৈধ সম্পদ অর্জনে দুর্নীতির মামলায় আগামী ২০ জুলাই যুক্তিতর্ক শুনানির দিন ধার্য করেছেন আদালত।

বুধবার (২৯ জুন) ঢাকার ৩ নম্বর বিশেষ জজ আবু আহমেদ জমাদার মামলাটির আত্মপক্ষ সমর্থনের শুনানি শেষে এই তারিখ ধার্য করেন।

ওইদিন আত্মপক্ষ শুনানিতে এই সাংসদ নিজেকে নির্দোষ দাবি করে লিখিত বক্তব্য দাখিল করবেন বলে জানান। তাই বিচারক আগামী ২০ জুলাই লিখিত বক্তব্য দাখিল এবং যুক্তিতর্কের শুনানির দিন ধার্য করেন।

সাক্ষ্য গ্রহণকালে আসামি বদি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। মামলাটিতে ২০১৫ সালের ৯ সেপ্টেম্বর বদির বিরুদ্ধে চার্জগঠন করে আদালত।

bodi-mp-dudok

মামলাটিতে ২০১৫ সালের ৯ সেপ্টেম্বর বদির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন একই আদালত। মামলাটিতে ১৩ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন আদালত।

নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া হলফনামার বাইরে ১০ কোটি ৮৬ লাখ ৮১ হাজার ৬৬৯ টাকার অবৈধ সম্পদ থাকার অভিযোগে ২০১৪ সালের ২১ আগস্ট বদির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। দুদকের উপপরিচালক মোহাম্মদ আব্দুস সোবহান বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। সম্পদ ৩৫১ গুণ বৃদ্ধি পাওয়া এবং পাঁচ বছরে তার আয় ৩৬ কোটি ৯৬ লাখ ৯৯ হাজার ৪০ টাকা বৃদ্ধির অভিযোগ করা হয়।

২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে জমা দেওয়া হলফনামায় তার বার্ষিক আয় ছিল ২ লাখ ১০ হাজার ৪৮০ টাকা। ব্যয় ছিল ২ লাখ ১৮ হাজার ৭২৮ টাকা। ওই সময় বিভিন্ন ব্যাংকে তার মোট জমা ও সঞ্চয়ী আমানত ছিল ৯১ হাজার ৯৮ টাকা।

২০১৫ সালের ৭ মে দুদকের উপ-পরিচালক মঞ্জিল মোর্শেদ আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। মামলাটিতে তিনি ২০১৪ সালের ১২ অক্টোবর ঢাকা সিএমএম আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন প্রার্থনা করলে বিচারক তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠান। পরবর্তীতে তিনি হাইকোর্ট থেকে জামিন পান।