গুলশানে পুলিশ-সন্ত্রাসী গোলাগুলি: চার কিলোমিটার এলাকা ঘিরে র‍্যাব–পুলিশ

১২:৩৯ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, জুলাই ২, ২০১৬ Breaking News, জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর – সন্ত্রাসীদের নিয়ন্ত্রণে থাকা গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারি নামে স্প্যানিশ রেস্তোরাঁর আশপাশের চার কিলোমিটার এলাকা ঘিরে রেখেছে বিপুলসংখ্যক র‍্যাব-পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

ওই রেস্তোরাঁয় সন্ত্রাসীদের হানা দেওয়ার প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা পর রাত ১২ টায় এই প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত রেস্তোরাঁর ভেতরে বা এর গলির মধ্যে এখনো আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কেউ ঢুকতে পারেনি। রেস্তোরাঁর আলোর বন্ধ রয়েছে। সেখান থেকে কিছু ক্ষণ পর পর আসছে গুলির শব্দ। ভেতরে দেশি-বিদেশি বেশ কয়েকজন নারী-পুরুষ জিম্মি হয়ে আছেন।

rab-pollice-gulsan

ঘটনাস্থলে থাকা প্রতিবেদকেরা জানান, ঘটনাস্থলের আশপাশে ব্যাপক পুলিশ-র‍্যাব, সোয়াত, ডিবি এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অন্যান্য সদস্যরা অবস্থান নিয়েছেন। তারা প্রত্যেকই বুলেট প্রুফ জ্যাকেট এবং বিশেষায়িত ইউনিটগুলোর সদস্যরা গ্রেনেড শিল্ড, বুলেট শিল্ড, দরজা ভাঙার জিনিসপত্র ও ভারী অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ঘটনাস্থলে রয়েছেন।

সবাই নিচু শব্দে কথা বলছে। মাঝে মাঝে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বুটের খটখট শব্দ শোনা যাচ্ছে। মাঝে মাঝে কয়েকটি অ্যাম্বুলেন্স ও অন্যান্য গাড়ি গেলেই গাড়ির আলো নিভিয়ে চলতে বলা হচ্ছে। পুরো এলাকায় থেমে থেমে ও ভীতিকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

এর আগে রাত সাড়ে ১০টার দিকে ছোট্ট একটি হ্যান্ডমাইক নিয়ে পুলিশের একটি দল ওদের কাছাকাছি গেলে তাদের লক্ষ্য করে জিম্মিকারীরা হাতে তৈরি গ্রেনেড নিক্ষেপ করে। এ সময় বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য এবং কর্মকর্তা আহত হন।

উল্লেখ্য, শুক্রবার রাতে ‍রাজধানীর গুলশান-২ এলাকায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে আহত হয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালাউদ্দিন নিহত হয়েছেন। গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

গোলাগুলিতে এডিসি আহাদ, গুলশান থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম, উপপরিদর্শক (এসআই) রফিক ও এসআই জিয়া, ভাটারা থানার পরিদর্শক ইয়াছিনসহ বেশকিছু পুলিশকে আহত অবস্থায় ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনার পর থেকে পুরো রেস্টুরেন্ট এলাকা ঘিরে রেখেছে পুলিশ। পাশের একটি ক্লিনিকের ভেতর কথিত সন্ত্রাসীরা অবস্থান নিয়েছে দাবি করে সেই ক্লিনিকটিও ঘিরে রেখেছে পুলিশ।

ঘটনাস্থলসহ পুরো গুলশান-২ এলাকার রাস্তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তবে এই সন্ত্রাসীরা কারা এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি।

বাংলাদেশে এমন বিরল জিম্মি দশা ও সন্ত্রাসী হামলার ঘটনাটিই গোটা বিশ্বের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে চলে এসেছে।

Loading...