দেশের ৫০টি উপজেলা পেল নতুন অ্যাম্বুলেন্স

৬:৩২ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, আগস্ট ২, ২০১৬ Breaking News, জাতীয়, সুখবর প্রতিদিন, স্পট লাইট

সময়ের কণ্ঠস্বর – আজ দেশের বিভিন্ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অ্যাম্বুলেন্স বিতরণ করা হয়। দেশের গরিব রোগেীদরে স্বাস্থ্য সেবা দেওয়ার লক্ষে এটি একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয় থেকে বরাদ্দকৃত ৫০টি অ্যাম্বুলেন্স বিতরণ করা হয়। পরবর্তীতে আগামী অক্টোবরে আরও ৫৪টি অ্যাম্বুলেন্স বিভিন্ন উপজেলায় বিতরণ করা হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর কেন্দ্রীয় ঔষধাগারে অনুষ্ঠিত এ্যাম্বুলেন্স বিতরণ অনুষ্ঠানে নিজ নিজ জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও সংসদ সদস্যদের হাতে অ্যাম্বুলেন্সের চাবি তুলে দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

এসময় নাসিম বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। স্বল্প সম্পদ দিয়েও স্বাস্থ্যখাত আজ অনেক এগিয়ে। তারই ধারাবাহিকতায় আজ ৫০টি উপজেলায় নতুন অ্যাম্বুলেন্স দেওয়া হলো। এতে করে ওই সব এলাকার লাখ লাখ মানুষ উপকার পাবে। তবে খেয়াল রাখতে হবে এইসব অ্যাম্বুলেন্স যেন কারো ব্যাক্তিগত কাজে ব্যবহার না হয়। জনগণের সম্পদ জনগণই যেন ব্যাবহার করতে পারে।’

nas

মন্ত্রী আরও বলেন, একশ্রেণীর মানুষ চাই সরকারী অ্যাম্বুলেন্স নষ্ট থাকুক। এতে ওই এলাকার বেসরকারী অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস ব্যবসা করে। তারা যেন সে সুযোগ না পায়। পাশাপাশি অ্যাম্বুলেন্স রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ডিসি ও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা অর্থ খরচ করতে পারবে সে ব্যাপারে অর্থ মন্ত্রনালয়ের সাথে আলাপ করা হচ্ছে।’

এলাকার জনপ্রতিনিধিদের প্রতি আহব্বান করে মন্ত্রী বলেন, এলাকার সরকার আপনারা। আপনারা ব্যাক্তিগতভাবেও স্বাস্থ্যখাতের জন্য এগিয়ে আসতে পারেন। ভোটারদের মন জয় করতে হবে। তাই তাদের প্রতি খেয়াল রাখুন। প্রয়োজনে নিজের পকেটের টাকা দিয়ে তাদের সেবা দিন।’

পররাষ্ট প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, দেশের ১৬ কোটি মানুষকে সেবা দিতে হবে। এর আগে অ্যাম্বুলেন্স দেওয়া হয়েছে। একশ্রেণীর অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারী সেগুলোকে বিকল করে প্রাইভেট ব্যবসার সুযোগ নিয়েছে। সেগুলোর দিকে নজর রাখতে হবে।

রেলপথ মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী মজিবুল হক বলেন, বিএনপির আমলে স্বাস্থ্যখাত ছিল উপেক্ষিত। কমিউনিটি ক্লিনিক ছিল বন্ধ। বর্তমান সরকারের আমলে তা আবার চালু করা হয়েছে। সকলে সেবা পাচ্ছে। হাসপাতালগুলোর পরিবেশ ও সেবার মান উন্নত হয়েছে।

’এসময় নিজ জেলার প্রতিনিধি হিসাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর হাত থেকে অ্যাম্বুলেন্সের চাবি গ্রহণ করেন ,ইন্দুরকান্দি উপজেলার জন্য বন ও পরিবেশ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, চেীদ্দগ্রাম উপজেলার জন্য রেলমন্ত্রী মজিবুল হক, মাদারগঞ্জ উপজেলার জন্য বস্ত্র ও পাট মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী জনাব মির্জা আজম, করিমগঞ্জ উপজেলার জন্য শ্রম ও জনকল্যান মন্ত্রী মজিবুল হক চুন্নু, শেরপুর সদর উপজেলার জন্য হুইপ আতিকুর রহমান, বাঘা উপজেলার জন্য পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমসহ নিজ নিজ এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত সংসদ সদস্যরা।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা:দীন মোহাম্মদ নুরুল হক,যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আরিফ খান জয়,সাবেক চীফ হুইপ আবদুস শহীদ প্রমুখ।

Loading...