সংবাদ শিরোনাম
গাজীপুরে দীর্ঘ সময় মর্গে লাশ ফেলে রাখার অভিযোগে হামলা এবং ভাংচুর, আটক-৩ | দুর্দান্ত খেলেও ভারতকে হারাতে পারলো না বাংলাদেশ | বুয়েটে বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত ব্যানার থেকে মুছে ফেলা হলো ছাত্রলীগের নাম | ভারতের বিপক্ষে ১-০ গোলে এগিয়ে বাংলাদেশ | ‘বুয়েট ছাত্র আবরার হত্যাকারীদের মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত’- কাদের | বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির সাবেক ৭ এমডিসহ ২৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা | সাভার থেকে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন হরকাতুল জিহাদের এক সদস্য আটক | পাবনায় ছেলের পাথরের আঘাতে বাবার মৃত্যু | বশেমুরবিপ্রবি’র প্রভোষ্ট ও বিভিন্ন অনুষদের চেয়ারম্যানসহ ৭ জনের পদত্যাগ | অবৈধ স্থাপনা সরাতে সাবেক সাংসদ উপজেলা চেয়ারম্যানসহ ৪ জনকে নোটিশ |
  • আজ ১লা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

লাদেন হত্যা নিয়ে বই লিখে ৫৫ কোটি টাকা জরিমানা

১১:৫১ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, আগস্ট ২১, ২০১৬ আন্তর্জাতিক, স্পট লাইট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- ওসামা বিন লাদেন হত্যার অভিযানে অংশ নেওয়ার কাহিনী বর্ণনা করে বই লিখে রীতিমতো হৈচে ফেলে দিয়েছিলেন মার্কিন নেভি সিল সদস্য সাবেক কর্মকর্তা ম্যাট বিসোনেট। ২০১২ সালে প্রকাশ হওয়া বইটি ছিল সে বছরের সর্বাধিক বিক্রীত (বেস্ট সেলার)। অবশ্য বইটি নিজের নামে নয়, মার্ক ওয়েন ছদ্মনামে লিখেছিলেন তিনি।photo-1471757012তবে এবার সেই বইয়ের জন্যই জরিমানা গুনতে হবে ম্যাটকে। কেননা, চুক্তি লঙ্ঘন করে প্রকাশ করা যাবে না—এমন সব তথ্য প্রকাশ করেছিলেন তিনি। তা ছাড়া ‘নো ইজি ডে’ শিরোনামে লেখা বইয়ের জন্য পেন্টাগনের ছাড়পত্র বা অনুমতিও নেননি ম্যাট। আর এসব অভিযোগে মার্কিন সরকার সাত মিলিয়ন ডলার বা প্রায় ৫৫ কোটি টাকা জরিমানা করেছে তাঁকে।

জরিমানা হিসেবে এখন থেকে বই বিক্রির লাভ এবং রয়্যালটির সব অর্থ রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দেবেন ম্যাট। ছেড়ে দেবেন বইটি থেকে চলচ্চিত্র তৈরির অধিকারও। আর এর বদলে ম্যাটের ওপর থেকে বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ তুলে নেবে দেশটির সরকার।

বার্তা সংস্থা এপি জানিয়েছে, আগামী চার বছর টানা রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জরিমানার অর্থ জমা দিতে হবে ম্যাটকে।

২০১১ সালে মার্কিন নেভি সিল টিমের এক অভিযানে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদে নিহত হন আল-কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেন। পরে তাঁকে সাগরেই সমাহিত করা হয়।

নিয়ম অনুযায়ী এ ধরনের গোপন অভিযানে অংশ নেওয়া কমান্ডোদের প্রতি নির্দেশ থাকে, তাঁরা যেন অভিযানের কোনো তথ্য জনসমক্ষে প্রকাশ না করেন। তার পরও পেন্টাগনের অনুমতি না নিয়ে বই প্রকাশ করে অভিযানের ঘটনা বর্ণনা করায় ম্যাটের বিরুদ্ধে মামলা করে মার্কিন সরকার। তাঁর বিরুদ্ধে গোপন চুক্তি ভঙ্গের অভিযোগ আনা হয়।