বছরের অস্কারে সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য প্রামাণ্যচিত্র “এ গার্ল ইন দ্য রিভার: দ্য প্রাইস অব ফরগিভনেস”

বিনোদন ডেস্ক, সময়ের কণ্ঠস্বর ~ পাকিস্তানে প্রতি বছর এক হাজারের বেশি নারীকে পরিবারের সম্মান বাঁচাতে তাদের পরিবার মেরে ফেলে। এমনি এক ঘটনায় প্রেমের কারণে ১৮ বছরের কিশোরী সাবাকে তার বাবা ও চাচা মেরে নদীতে ফেলে দেন। কিন্তু ভাগ্যক্রমে বেঁচে যায় সাবা।

এই মেয়েটির জীবনের গল্প নিয়ে নির্মিত ‘এ গার্ল ইন দ্য রিভার: দ্য প্রাইস অব ফরগিভনেস’ (২০১৫) এ বছরের অস্কারে সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য প্রামাণ্যচিত্র হয়েছে। ৩৯ মিনিট ব্যাপ্তির ছবিটি পরিচালনা করেছেন শারমিন ওবায়েদ চিনয়।
বাংলাদেশ প্রামাণ্যচিত্র পর্ষদের সভাপতি আনোয়ার চৌধুরী জানান, নারীর সংগ্রাম বিষয়ে পাকিস্তানি ছবিটির পাশাপাশি থাকছে সাম্প্রতিক সময়ে আলোচিত বাংলাদেশের স্বল্পদৈর্ঘ্য প্রামাণ্যচিত্র ‘বিষকাঁটা’ ও ‘অশ্বারোহী তাসমিনা’। প্রদর্শনী শেষে এগুলোর নানাদিক নিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে  মুক্ত আলোচনা।

pak-girl

ফারজানা ববি পরিচালিত ‘বিষকাঁটা’র (২০১৪) ব্যাপ্তি ৪০ মিনিট। এতে রয়েছে তিনজন বীরাঙ্গনার গল্প। মুক্তিযুদ্ধ শেষ হয়েছে ঠিকই, কিন্তু যুদ্ধে সহিংসতার শিকার বীরাঙ্গনা নারীদের জীবন যুদ্ধ শেষ হয়নি। তাদের এ যুদ্ধ আত্মসম্মানের, ইজ্জতের ও সামাজিক মর্যাদার।

ফরিদুর রহমানের ‘অশ্বারোহী তাসমিনা’র (২০১৫) ব্যাপ্তি ১৮ মিনিট। এর গল্পে দেখা যায়, ১১ বছরের বালিকা তাসমিনা ঘোড়াওয়ালি নামেই পরিচিত। যেখানে মেয়েদেরকে মাঠে খেলাধুলা করতে দিতে সমাজ আপত্তি করে, সেখানে তাসমিনা তার চেয়ে বেশি বয়সের পুরুষ প্রতিযোগীদের পেছনে ফেলে ঘোড়াদৌড়ে প্রথম বা দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে। দর্শকের অভিনন্দন পেলেও পুরস্কার আর নগদ অর্থ নিয়ে যান ঘোড়ার মালিক।