সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ৬ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

অপহৃত শিশু ৫ মাসেও উদ্ধার হয়নি : ছেলেকে ফিরে পেতে প্রতিবন্ধী বাবার করুন আকুতি

১:২৫ অপরাহ্ণ | শনিবার, অক্টোবর ২২, ২০১৬ চট্টগ্রাম, দেশের খবর

মোঃ ইমাম উদ্দিন সুমন, নোয়াখালী প্রতিনিধি: নোয়াখালী সুবর্ণচর উপজেলার পঙ্গু দিন মজুর নুর হোসেনের ১০ বছরের শিশু রিয়াজকে ঢাকায় বাসায় কাজের প্রলোভন দেখিয়ে অপহরন করে। ছেলেকে ফিরে পেতে অসহায় পঙ্গু বাবা মামলা করে প্রতিনিয়ত অপহরনকারীদের হামলার শিকার হচ্ছেন। প্রান বাঁচাতে নিজ ভিটে-বাড়ী ছেড়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে রাস্তায় রাস্তায় মানবতার জীবন যাপন করছেন।

pongu-baba

ঘটনাটি ঘটে ২৪ জুন ২০১৬ তারিখ শুক্রবার বেলা ১২ টায়। ঘটনা ও মামলা সুত্রে জানা যায়, মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের র্চ্ আলাউদ্দিন গ্রামের ইসমাইল হোসেন ওরপে শামসু তহশিলদার ছেলে জয়নাল আবেদীন উক্ত তারিখে শিশু রিয়াজকে চরলক্ষ্মী এলাকার চর আলা উদ্দিনের খালে মাছ ধরার সময় একই এলাকায় বেলায়েত হোসেন, নুরুল আমিন ও এমলাক হোসেনের সহযোগিতায় কৌশলে অপহরন করে। অপহৃত রিয়াজকে অনেক খোজা-খুজির পর অপহরনকারী জয়নাল স্বীকার করে শিশু রিয়াজকে তার মালিক আজিম সাহেবের বোন শাহাদা খালেদের ঢাকায় কাপরুল থানা এলাকার ১০ নং মিরপুর মতাব্বর পুকুর পাড় মিসের বামসায় কাজে লাগিয়ে দেয়। রিয়াজের অসহায় মা-বাবা বুকের ধনকে ফিরে পেতে স্থানিয় সালিশ বসায়। অপহরনকারী জয়নাল বাহীনি প্রভাবশালী হওয়ায় কোন সুফল পায়নি পঙ্গু নুর হোসেনের পরিবার।

এ ব্যাপারে নুর হোসেন চরজব্বর থানায় এ বিষয়ে মামলা করতে গেলে পুলিশ রহস্যজনক কারনে মামলা গ্রহন করেনি। নিরুপায় হয়ে ভুক্তভোগি বিগত ১১ই আগস্ট ২০১৬ তারিখে মানব পাচার দমন ট্রাইব্যুনাল নোয়াখালীর আদালতে মামলা দায়ের করে মামলা নং ৫/২০১৬। ১৪ই আগস্ট ২০১৬ তারিখে নং ৪৭৯৬ স্মারকে আদালত উক্ত মামলায় চরজব্বর থানা পুলিশকে প্রয়োজনিয় ব্যাবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন কিন্তু চরজব্বর থানা পুলিশ রহস্যজক কারনে অপহরনকারী বিরুদ্ধে কোনো আইনগত কোন ব্যাবস্থা গ্রহন করেননি বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।

অপরদিকে শিশু রিয়াজকে ঢাকায় কাপরুল থানা এলাকায় অপহরনকারী জয়নাল তার মালিকের তার বোন শাহাদা খালেদের কড়া নিরাপত্তা থাকা বাসার চতুর্থ তলায় কাজে লাগিয়ে দিয়েছে বলে প্রকাশ করে। রহস্য ও আশ্চার্যের বিষয় অপহরনকারী জয়নালের কথিত মালিকের বোন শাহেদা খালেদ বাদী হয়ে বিগত ২৬ জুন ২০১৬ তারিখে কাপরুল থানায় সাধারন ডায়রী করেন ১৪৪৫ রেকর্ড করে। ওই জিডিতে উল্লেখ রয়েছে কাজের ছেলে মোস্তফা রিয়াজ হারিয়ে গেছে। অপহৃত রিয়াজের শোকাতুর মা-বাবা ও এলাকাবাসী জানান, ২৪ জুন, আর ২৬ জুন মাত্র দুইদিনের মাথায় ঢাকায় কাপরুল থানা এলাকার অভিজাত বাসা থেকে হারিয়ে যায়। বিষয়টি সম্পুর্ণ রহস্যজনক।

এদিকে সচেতন মহলের ধারনা অপহরনকারী চক্র কাপরুল থানায় উল্লেখিত জিডি করে আইনের হাত থেকে বেঁচে থাকার চেষ্টা করছে। ওদিকে থানা পুলিশ রহস্যজনক কারনে অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনগত কোন ব্যাবস্থা নিচ্ছে না। তাই স্থানিয় এলাবাসী অপহৃত শিশু রিয়াজের ভাগ্যে অদ্যাবধি কি ঘটেছে তা জানতে এবং শিশুটিকে উদ্ধার সহ অপরাধীদেরকে দ্রুত আইনের আওতায় সৌফর্দ্দ করতে র‌্যাবের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

Loading...