সংবাদ শিরোনাম
সাতার কেটে নদী পার হতে গিয়ে নিখোঁজ যুবকের মরদেহ উদ্ধার | জেএসসি, এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি: শিক্ষা মন্ত্রণালয় | পরিবেশমন্ত্রী শাহাব উদ্দিন করোনায় আক্রান্ত | বগুড়ায় স্বাক্ষর জালিয়াতির ঘটনায় ম্যানেজিং কমিটির ৭ সদস্যের সংবাদ সম্মেলন | অভিমান করে বের হয়ে লাশ হয়ে বাড়ি ফিরলেন তরুণী | ‘শয়তান আমাকে বাঁচতে দিলনা’ লিখে আত্মহত্যা করলো কলেজছাত্র | তেজগাঁও কলেজের নাম ভাঙিয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে অভিনব ‘প্রতারণা’ | ‘আমি কোনো দুর্নীতি করিনি’- সাবেক স্বাস্থ্য ডিজি | করোনার ভ্যাকসিন আমদানির জন্য আলাদা অর্থ রাখা হয়েছে: অর্থমন্ত্রী | গাইবান্ধায় ফের রাস্তায় সন্তান প্রসবের অভিযোগ |
  • আজ ২৮শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ওবায়দুল কাদেরকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করায় নোয়াখালীতে চলছে আনন্দ মিছিল, মিষ্টি বিতরণ

১২:০৪ অপরাহ্ণ | সোমবার, অক্টোবর ২৪, ২০১৬ চট্টগ্রাম, দেশের খবর

মো: ইমাম উদ্দীন সুমন, নোয়াখালী প্রতিনিধি- সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ঘোষনার পর তার নিজ জেলা নোয়াখালীতে চলছে আনন্দ মিছিল, মিষ্টি বিতরণ।

নোয়াখালী সব কয়েকটি উপজেলার যেন আনন্দের জোয়ারে ভাসছে, সুবর্ণচর, সেনবাগ, হাতিয়া, বেগমগঞ্জ, কবিরহাট সহ ৯টি উপজেলা ধাপে ধাপে চলছে রাজনৈতিক সহ নানা সংগঠনের আনন্দ মিছিল, হাট, বাজার পাড়া মহল্লায় চলছে মিষ্টি বিতরণ।

14805553_1027831094009485_2009982699_nসুবর্ণচর উপজেলা ছাত্রলীগের আহব্বায়ক আমির খসরু জানান, ওবায়দুল কাদেরকে সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত করায় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ তার যোগ্যতার প্রমান দিয়েছে, বসুরহাটের ব্যাবসায়ীরা অনেককে একে অপরকে মিষ্টি খাওয়াতে দেখা গেছে।

অপরদিকে দলীয় কর্মীরা অনেকে সম্মেলনস্থলে তারপরও যারা এলাকায় রয়েছে তাদেরকে বেশ উচ্ছাসিত দেখা যাচ্ছে। স্থানীয় এক নেতা জানায় নোয়াখালীবাসি গর্বিত ওবায়দুল কাদেরের মত পরিশ্রমী নেতাকে দলের গুরুত্বপূর্ন দায়িত্ব দেয়ায়।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক নুরনবী চৌধুরী বলেন, ওবায়দুল কাদের আমাদের নেতা সমগ্র দেশের নেতা তার মত নেতাকে দলের দায়িত্ব দেয়ায় আমরা শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞ।

কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক হাসান ইমাম রাসেল বলেন, ওবায়দুল কাদেরকে কোন দলের নেতা হিসেবে আমরা দেখিনা, তিনি নোয়াখালীর গর্ব, আমাদের গর্ব। ১৯৭৮ এ মরহুম আব্দুল মালেক উকিল আওয়ামীলীগের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। এখন তার ৩৮ বছর পর আবার নোয়াখালীতে ওবায়দুল কাদের সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে নোয়াখালীবাসিকে গর্বিত করেছেন একজন সাংবাদিক হিসেবে তার উত্তোরত্তর সাফল্য কামনা করছি। সাবেক এক ছাত্রনেতা জানান, ওবায়দুল কাদের কোম্পানীগঞ্জসহ সারা দেশের গর্ব।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হওয়ার আগে তিনি দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ছিলেন। আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলনে কাউন্সিলররা ওবায়দুল কাদেরকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করেন।

রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন রবিবার বিকালে দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা বর্তমান কমিটি বিলুপ্তির ঘোষণা দেয়ার পরপরই নির্বাচনী অধিবেশন শুরু হয়। সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী সভাপতি পদে শেখ হাসিনার নাম প্রস্তাব করেন। নির্বাচন কমিশনার ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন সভাপতি পদে আর কোনো নাম প্রস্তাব না পাওয়ায় শেখ হাসিনাকে আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে ঘোষণা করেন।

নতুন কমিটিতেও সভাপতি পদে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই বলে দলীয় নেতারা বলে আসছেন। তবে শেখ হাসিনা তিনি থাকতে থাকতেই নতুন নেতৃত্ব বেছে নেয়ার আহ্বান জানান। কমিটি বিলুপ্তির আগে শেখ হাসিনা একই প্রসঙ্গ তুললে কাউন্সিলর-পর্যবেক্ষকরা হৈ হট্টগোল শুরু করেন। তখন শেখ হাসিনা বলেন, আমি আওয়ামী লীগের সঙ্গেই থাকব, যে পদেই থাকি না কেন।

সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফের স্থান হয়েছে সভাপতিমণ্ডলীতে। সভাপতিমণ্ডলীতে তার পাশাপাশি নতুন এসেছেন নুরুল ইসলাম নাহিদ, আব্দুর রাজ্জাক, ফারুক খান, আবদুল মান্নান খান, রমেশ চন্দ্র সেন ও পীযূষ ভট্টাচার্য (যশোর)।

পুরনোদের মধ‌্যে সভাপতিমণ্ডলীতে থাকছেন সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, মোহাম্মদ নাসিম, কাজী জাফর উল‌্যাহ, সাহারা খাতুন, ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। পুরনো যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব-উল আলম হানিফ, দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানকের সঙ্গে নতুন যোগ হয়েছেন আব্দুর রহমান। কোষাধ‌্যক্ষ পদে এন এইচ আশিকুর রহমানই থাকছেন নতুন কমিটিতে। বিদেশে থাকাকালে ১৯৮১ সালের সম্মেলনে শেখ হাসিনা প্রথমবারের মতো দলের সভাপতি নির্বাচিত হন। এরপর ১৯৮৭, ১৯৯২, ১৯৯৭, ২০০২, ২০০৯ ও ২০১২ সালে তিনি সভাপতি নির্বাচিত হয়ে আসছেন। দলটির প্রতিষ্ঠাতাদের অন্যতম ও স্বাধীনতার স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু টানা ৪ বার দলটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।

এর আগে তিনি ৪ বার সাধারণ সম্পাদক এবং প্রতিষ্ঠার সময়ে বঙ্গবন্ধু দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের পদটি পান। এছাড়া অন্যান্য সভাপতির মধ্যে আবদুল হামিদ খান ভাসানী ৪ বার, এইএচএম কামারুজ্জামান ২ বার এবং আব্দুর রশীদ তকর্বাগীশ ও আব্দুল মালেক এক বার করে সভাপতি নির্বাচিত হন। এদিকে সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে বঙ্গবন্ধু ছাড়া জিল্লুর রহমান ৫ বার, তাজউদ্দিন আহমেদ, আবদুর রাজ্জাক ও সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ২ বার এবং শামসুল হক, সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী ও আবদুল জলিল এক টার্মেরর জন্য সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।

আওয়ামী লীগের বিদায়ী কমিটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ওবয়দুল কাদের এবার প্রথমবারের মতো সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হলেন। ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ওবায়দুল কাদের দীর্ঘদিন ধরে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন। তিনি ২০০২ সালের সম্মেলনে দলের ১ নম্বর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০০৯ ও ২০১২ সালে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য নির্বাচিত হন। নোয়াখালী অঞ্চল থেকে নির্বাচিত এই সংসদ সদস্য বর্তমানে সরকারের সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে আছেন।

Skip to toolbar