নোয়াখালীতে আ’লীগ ১২, বিএনপি ৫ ও বিদ্রোহী ১ জন নির্বাচিত

১১:৫৭ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, নভেম্বর ১, ২০১৬ চট্টগ্রাম, দেশের খবর

মোঃ ইমাম উদ্দিন সুমন, নোয়াখালী প্রতিনিধি: গত ৩১ শে মার্চ নির্বাচনে নোয়াখালীতে কেন্দ্র দখল, ব্যালট বাক্স ছিনতাই সহ নানা অভিযোগে স্থগিত হওয়া কেন্দ্র্রগুলির পুনরায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ৩১ অক্টোবর সোমবার। নোয়াখালীর ৪ টি উপজেলার ৪৭ টি ইউনিয়নের ১২৫ কেন্দ্রে তার মধ্যে ২০ টি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সহ সদস্যদের ভোট গ্রহন সম্পন্ন হয়।

balot

এতে নোয়াখালীর সবকটি উপজেলায় শান্তিপুর্ণ ভোট হলেও সেনবাগ উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের রাজা রামপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় ও নলদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগের রাতেই কেন্দ্র দখল করে ভোট দিয়ে ব্যালট বক্স পুরিয়ে রাখায় ভোট গ্রহনের আগেই নোয়াখালী জেলার জ্যেষ্ঠ নির্বাচন কর্মকর্তা মনির হোসেন ঐ কেন্দ্রে ভোট গ্রহন স্থগিত করে। ক্ষুদ্ধ হয়ে ভোট কেন্দ্রে আসার রাস্তা কেটে ফেলে দুবৃত্তরা।

বেসরকারিভাবে ১৮ ইউনিয়নে আ’লীগ ১২, বিএনপি ৫ ও বিদ্রোহী (আ.লীগ) ১ জন নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচিতরা হলেন সদর উপজেলা নেয়াজপুর এ এইচ এম বাহাদুর (আ.লীগ), বেগমগঞ্জ আমান উল্ল্যা ইউনিয়ন আরিফুর রহমান (আ.লীগ), জিরতলী রফিকুল ইসলাম মিলন (আ.লীগ), আলাইপুরে আনিসুর রহমান (আ.লীগ), রামগঞ্জে সেলিম (আ.লীগ), বেগমগঞ্জে মোস্তফা কামাল (আ.লীগ), দূর্গাপুরে আবেদ সাইফুল (আ.লীগ), রসূলপুরে নুরুল হোসেন সেলিম (আ.লীগ), শরিপপুরে মিন্টু (আ.লীগ), নরত্তমপুরে হারুনুর রশীদ বাচ্চু (বিএনপি), একলাশপুরে খলিলুর রহমান (বিএনপি), হাজীপুরে তরিকুল্ল্যা জিন্না (বিএনপি), সেনবাগ উপজেলার কাদরায় কামরুজ্জামান পলাশ (আ. লীগ), কাবিলপুরে আনেয়ার হোসেন (বিএনপি), বিজবাগে বাকের হোসেন কোম্পানি (বিএনপি), সোনাইমুড়ী উপজেলার অম্বর নগরে আক্তার হোসেন দুলু (আ.লীগ) কোম্পানিগঞ্জ উপজেলার স্থগিত হওয়া ১১ কেন্দ্রে শান্তিপুর্ণ ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে।

স্থগিতকৃত কেন্দ্র সিরাজপুর ইউনিয়নে নৌকা প্রতিক নিয়ে ৮৮২৮ ভোট পেয়ে নুর নবী চৌধুরী পুনরায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদন্ধী বেলায়েত হোসেন আনারস প্রতিক নিয়ে পান ২৬২৬ ভোট, ধানের শীষ প্রতিক নিয়ে পেয়েছেন ৯৪৪ ভোট। উপজেলাটির ১১ টি কেন্দ্রে ২৫৭৫৫ জন ভোটারের মধ্যে ৬০ ভাগ ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন বলে নির্বাচন কমিশন জানান। নাশকতা এড়াতে সবকটি কেন্দ্রে প্রর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। সকাল ৮ টা থেকে বেলা ১২ টা পর্যন্ত ভোটারের উপস্থিতি ছিলো চোখে পড়ার মত।

Skip to toolbar