• আজ ১৪ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রোহিঙ্গা ইস্যুতে ব্যস্ত প্রশাসন : ঢুকছে ইয়াবা

১:০৭ অপরাহ্ণ | রবিবার, ডিসেম্বর ১১, ২০১৬ চট্টগ্রাম, দেশের খবর

ইমরান জাহেদ, কক্সবাজার প্রতিনিধি: মিয়ানমারের আরাকান প্রদেশে বসবাসরত রোহিঙ্গাদের উপর দমন নিপীড়ন, খুন, ধর্ষণ, জ্বালাও পোড়াও অভিযান অব্যাহত থাকার ধারাবাহিকতায় সীমান্তের বিভিন্ন পয়েন্টের বাস্তুহারা রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ বেড়েছে উদ্বেগজনক।

cox-bazar_84912

অনুপ্রবেশ ঠেকাতে সীমান্ত রক্ষী বিজিবি সহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ব্যস্ত থাকার সুযোগে তৎপর ইয়াবা পাচারকারী সিন্ডিকেট। চলতি মাসে কোস্টগার্ড, বিজিবি ও পুলিশ পৃথক অভিযান চালিয়ে প্রায় ৩৫ কোটি টাকার ইয়াবা উদ্ধার করেছে। আটক করা হয়েছে প্রায় ২৫ জন পাচারকারীকে। জব্দ করা হয়েছে বিভিন্ন প্রকার যানবাহন।

সূত্র মতে, মিয়ানমারের আরাকান রাজ্যে মুসলিম রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠি অধ্যুষিত এলাকায় সে দেশের সেনা, পুলিশ ও রাখাইন যুবকদের পৈচাষিক নির্যাতনের শিকার হয়ে বাস্তুহারা অসংখ্য রোহিঙ্গা এদেশে পাড়ি জমাচ্ছে। রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঠেকাতে গিয়ে ভেস্তে গেছে ইয়াবা পাচার প্রতিরোধ কার্যক্রম। এমনটাই দাবী স্থানীয় সুশীল সমাজের প্রত্যক্ষদর্শী লোকজনেরা।

গত সেপ্টেম্বর মাসে দুই দেশের উচ্চ পর্যায়ে প্রতিনিধি দলের সমন্বয়ে ইয়াবা পাচার প্রতিরোধ সংক্রান্ত বৈঠকের কথা থাকলেও রোহিঙ্গা ইস্যুর কারণে তা হয়নি। ফলে বিগত সময়ের তুলনায় ইয়াবার পাচার অনেকটা অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে বলে সীমান্তরক্ষী বিজিবি সদস্যদের অনেকেই স্বীকার করেছেন।

টেকনাফ বিজিবি সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার ৮ ডিসেম্বর বিকেলে সাবরাং এলাকা থেকে ৯ হাজার ৮৪ পিস ইয়াবাসহ মোটর সাইকেল আরোহী মোস্তফা নামের এক যুবককে আটক করে পুলিশের হাতে সোপর্দ্দ করেছে বিজিবি সদস্যরা।

ঘুমধুম বিজিবির নায়েব সুবেদার মোঃ হাবিব জানান, উখিয়া টিভি রিলে কেন্দ্র এলাকায় যাত্রীবাহী মাইক্রোতে তল্লাসী চালিয়ে প্রায় ৬ লক্ষ টাকার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। উখিয়া থানার অফিসর ইনচার্জ মোঃ আবুল খায়ের জানান, সম্প্রতি কুতুপালং বুড়ির ঢালা এলাকায় একটি বিলাসবহুল কার গাড়ীতে তল্লাসী চালিয়ে ২৪১০ পিস ইয়াবাসহ হোয়াইক্যং আ’লীগ নেতা নাজু চৌধুরী সস্ত্রীক ও কক্সবাজারের ছাত্রলীগ নেতা আনোয়ারুল করিম ও তার প্রেমিকাসহ ৪ জনকে আটক করা হয়েছে।

টেকনাফ কোস্টগার্ড পূর্ব জোনে স্টাফ অফিসার উমর ফারুক সাংবাদিকদের জানান, গত ৬ ডিসেম্বর সেন্টমার্টিন সাগরের অদূরে একটি ফিশিং বোটে তল্লাসী চালিয়ে ৫০ হাজার ইয়াবাসহ টেকনাফের বাবুল মিয়া (১৮), মোঃ ইদ্রিস (৩২), মোঃ জুবায়ের (১৮) ও মোঃ জনি (৩৫) সহ ৪ জনকে আটক করা হয়েছে। ওই রাত ২ টায় ছেড়াদ্বীপ এলাকায় অপর একটি ফিশিং বোটে তল্লাসী চালিয়ে ৫ লাখ ৫০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে কোস্টগার্ড।

তিনি আরো জানান, কোস্টগার্ডের উপস্থিতি লক্ষ করে পাচারকারীরা ইয়াবাবহন কারী বোটটি ফুটো করে দিয়ে পালিয়ে যায়। টেকনাফ ২ বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল আবু জার আল জাহিদ জানান, নভেম্বর মাসে বিজিবি সদস্যরা প্রায় ২০ লক্ষ পিস ইয়াবাসহ ২৫ জন পাচারকারীকে আটক করেছে।

কক্সবাজার ৩৪ বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল ইমরান উল্লাহ সরকার জানান, অনুপ্রবেশ প্রতিরোধের পাশাপাশি বিজিবি সদস্যরা ইয়াবা পাচার ঠেকাতে সীমান্তে দিনরাত পরিশ্রম করছে।

Loading...