শীতলক্ষ্যা নদীতে পাওয়া প্রাডো গাড়ির মালিক শনাক্ত

রেজাউল সরকার (আঁধার) গাজীপুর প্রতিনিধি : জেলার কাপাসিয়ার শীতলক্ষ্যা নদীতে পাওয়া সেই আলোচিত বিলাসবহুল প্রাডো গাড়ির মালিক দেড় বছর আগে গুম হওয়া জাতীয় পার্টির নেতা খন্দকার হেফজুর রহমান।
সোমবার রাতে তার স্ত্রী সালেহা বেগম ঢাকার সিআইডির সহযোগিতায় কাপাসিয়া থানায় এসে গাড়িটি শনাক্ত করেন। কাপাসিয়া থানার ওসি আবু বকর সিদ্দিক সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।
peradoহেফজুর রহমানের স্ত্রী সালেহা বেগম জানান, ২০১৫ সালের ৭ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টার দিকে তার স্বামী খন্দকার হেফজুর রহমান ঢাকার বাড্ডার ৬৭/৩ নম্বর বাড়ি থেকে নিজস্ব প্রাডো গাড়িটি নিয়ে বের হন। তার সঙ্গে ছিলেন দেহরক্ষী ক্যাপ্টেন শওকত, আবদুল আউয়াল ও চালক শাহ আলম। গাড়িটি গুলশান-১ এর চেক পোস্টের লিংক রোডের মাথায় পৌঁছলে অপরিচিত সাদা পোশাকধারী কয়েকজন লোক গাড়িটি রোধ করে। তারা অস্ত্রের মুখে অন্যদের নামিয়ে দিয়ে তার স্বামী হেফজুর রহমানকে অজ্ঞাতস্থানে নিয়ে যায়। তখন থেকে তার স্বামীর সন্ধান নেই। গাড়িটিও পাওয়া যাচ্ছিল না।
দীর্ঘ প্রায় দেড় বছর পর গত ১৯ জানুয়ারি কাপাসিয়া সদরের দস্যুনারায়ণপুর বাজারসংলগ্ন শীতলক্ষ্যা নদীর মাছের ঘের থেকে হারিয়ে যাওয়া গাড়িটি কাপাসিয়া থানা পুলিশ উদ্ধার করে। পরে অনুসন্ধান চালিয়ে প্রকৃত মালিক ও গাড়ির নাম্বার পাওয়া যায়।
সালেহা বেগম জানান, তার স্বামী জাতীয় পার্টির (আনোয়ার হোসেন মঞ্জু) হয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ আসন থেকে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন। তার বাড়ি কসবা উপজেলার কাইয়ূমপুর ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুর গ্রামে।