আদালতে বাংলা পুরোপুরি চালু না হওয়ায় আমরা খুবই দুঃখিত: প্রধান বিচারপতি

সময়ের কণ্ঠস্বর – সরকারি দপ্তরগুলোতে বাংলা ভাষা চালু হলেও আদালতে এখনো পুরোপুরি চালু করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। আর এজন্য তিনি দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তবে আদালতেও দ্রুত বাংলা ভাষা চালু হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি।

মঙ্গলবার সকালে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন প্রধান বিচারপতি।

প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা সাংবাদিকদের বলেন, সরকারি অধিদপ্তরগুলোয় বাংলা চালু হলেও আদালতে সেটা বাস্তবায়ন করা পুরোপুরি সম্ভব হয়নি। এজন্য আমরা খুবই দুঃখিত। অবশ্য হাইকোর্ট বিভাগের কয়েকজন বিচারক খুব সুন্দরভাবে বাংলায় রায় লিখছেন। এটা অন্যদের জন্য অনুসরণীয় হতে পারে। আপিল বিভাগেও আমরা এটি বাস্তবায়নের চেষ্টা করছি।

এসকে সিনহা বলেন, প্রযুক্তির এই যুগে যদি কোনো ডিভাইস আসে যার মাধ্যমে আদালতে ঘোষণা করা রায় বাংলায় রূপান্তর হয়ে যাবে, তাহলে অনায়াসে বাংলা ব্যবহার নিশ্চিত করা সম্ভব হবে।

sk-sinha-february

আদালতসহ সর্বস্তরে বাংলা ভাষা ব্যবহারের নির্দেশনা চেয়ে ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে হাইকোর্টে একটি রিট করেন আইনজীবী ড. ইউনুস আলী আকন্দ। ওই রিটে একই বছরের ১৭ ফেব্রুয়ারি রুল জারি করেন হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ। কিন্তু এখনো ওই রুলের চূড়ান্ত শুনানি না হওয়ায় বিষয়টি ঝুলে রয়েছে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের সংবিধানে স্পষ্ট বলা হয়েছে, ‘প্রজাতন্ত্রের ভাষা হবে বাংলা।’ সুপ্রিম কোর্টের রুলসেও আদালতের ভাষা হিসেবে প্রথমে বাংলা এবং পরে অন্য ভাষা ব্যবহারের নির্দেশনা রয়েছে। তবে এরপরও উচ্চ আদালতের সর্বস্তরে বাংলা ভাষার ব্যবহারে কার্যকর উদ্যোগ নেই সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের। কয়েকজন বিচারপতি ব্যক্তিগত আগ্রহে বাংলায় কয়েকটি রায় দিলেও এর সংখ্যা হাতেগোনা।