নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপিত

সজীব আহমেদ, বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি: ২১ ফেব্রুয়ারি মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০১৭ উদযাপন উপলক্ষ্যে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালা অনুষ্ঠিত হয়।

full

২০ ফেব্রুয়ারি সোমবার গাহি সাম্যের গান মঞ্চে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহীত উল আলম। মুখ্য আলোচক হিসেব আলোচনা করেন ভাষা সংগ্রামী জনাব কামাল লোহানী। বিশেষ অতিথি হিসেবে আলোচনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর এ এম এম শামসুর রহমান এবং সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোঃ নজরুল ইসলাম।

সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলা অনুষদের ডিন ও ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক প্রফেসর ড. মুশাররাত শবনম। আলোচক হিসেবে আলোচনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোঃ জাহিদুল কবীর এবং রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) ড. মোঃ হুমায়ুন কবীর।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন লোকপ্রশাসন ও সরকার পরিচালনবিদ্যা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব সঞ্জয় কুমার মুখার্জী। শিক্ষার্থীদের পক্ষ হতে বক্তব্য রাখেন সাব্বির আহমেদ এবং আপেল মাহমুদ। আলোচনা সভায় সঞ্চালনা করেন থিয়েটার এন্ড পারফরমেন্স স্টাডিজ বিভাগের প্রভাষক মোঃ মাজহারুল হোসেন তোকদার।

সন্ধ্যায় ফিল্ম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের আয়োজনে চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, থিয়েটার এন্ড পারফরমেন্স স্টাডিজ বিভাগের পরিবেশনায় নাটক কবর পুনঃপাঠ এবং সঙ্গীত বিভাগের পরিবেশনায় দেশের গান ও ভাষার গান অনুষ্ঠিত হয়।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে একুশের প্রথম প্রহর রাত ১২:০১ মিনিটে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। প্রথমে উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহীত উল আলম এবং পরে একে একে ট্রেজারার প্রফেসর এ এম এম শামসুর রহমান, সকল অনুষদের ডীন, সকল বিভাগীয় প্রধান, দুই আবাসিক হলের প্রভোস্ট, প্রক্টর, শিক্ষক সমিতি, কমর্ককর্তা পরিষদ, শিক্ষক সংগঠন, কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি ও বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-শিক্ষিক মণ্ডলী, কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, আজ ২১ ফেব্রুয়ারি বেলা ১১ টায় কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় স্কুলে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।