সৌদি আরব থেকে নবীগঞ্জের নির্যাতিতা কল্পনা দেশে ফিরছে আজ

মতিউর রহমান মুন্না, নবীগঞ্জ প্রতিনিধি: সৌদি আরবে উদ্ধার হওয়া নবীগঞ্জ উপজেলার গজনাইপুর ইউনিয়নের কায়স্থগ্রামের নির্যাতিতা মেয়ে কল্পনা দেশে ফিরছে আজ।

nobi

সোমবার মেয়েটিকে সৌদি আরবের একটি আদালতে হাজির করা হয়। শুনানি শেষে বিজ্ঞ বিচারক তাকে বাংলাদেশে পাঠানোর আদেশ দেন। পরে সোমবার রাতে মেয়েটিকে সৌদি আরবের একটি বিমানে বাংলাদেশে প্রেরণ করা হয়। এ তথ্য নিশ্চিত করে মেয়েটির বোন জানান, আমরা তাকে নেয়ার জন্য ঢাকায় এসেছি। ভোরে সে ফিরবে।

এদিকে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিলেট সিআইডির উপ-পুলিশ পরিদর্শক (অর্গানাইজড) সুমন মালাকার জানান, সৌদি আরবের সকল প্রক্রিয়া শেষে মেয়েটিকে দেশে পাঠানো হয়েছে।

তিনি বলেন, মামলার আসামী দালাল শেকুল আহমেদ ও ইয়াকুব মিয়াকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলছে। কিন্তু তারা আত্মগোপনে থাকার কারণে আমরা দ্রুত তাদের গ্রেফতার করতে পারছি না। তবে আশা করছি শ্রীঘ্রই তাদের গ্রেফতার করা হবে। পাশাপাশি মেয়েটির কাছ থেকে অনেক তথ্য উদঘাটন করা যাবে।

উল্লেখ্য, নবীগঞ্জ উপজেলার গজনাইপুর ইউনিয়নের কায়স্থগ্রামের এবাদ আলীর কন্যা কল্পনা দারিদ্র্যতা থেকে মুক্তি পেতে দালালের খপ্পরে পড়ে গত ৬ ডিসেম্বর গৃহকর্মীর চাকুরী নিয়ে সৌদি আরবের দাম্মামে যায়। সেখানে তার উপর শারীরিক ও পাশবিক নির্যাতন চলছিল।

এমপি কেয়া চৌধুরীর প্রচেষ্টায় সিআইডি পুলিশ সৌদি আরবে বাংলাদেশ দূতাবাসের মাধ্যমে মেয়েটিকে উদ্ধার করে। সেই সাথে ঢাকার নয়াপল্টন এলাকার গ্রীণ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল লিঃ ট্রাভেল এজেন্সী থেকে দালাল চক্রের ৩ সদস্যকে আটক করে।

আটককৃতরা হলো গ্রীণ বেঙ্গল ইন্টান্যাশনাল লিঃ এর জেনারেল ম্যানেজার মোঃ শাহজানুর রহমান, পরিচালক এরশাদ উল্লাহ ও আবু তাহের। তাদের মধ্যে আবু তাহের শায়েস্তাগঞ্জের ফরিদপুর গ্রামের রমিজ আলীর ছেলে, শাহজানুর রহমান ফেনী জেলার সোনাগাজী থানার বাগদানা গ্রামের মৃত সিরাজুর রহমানের ছেলে ও এরশাদ উল্লাহ কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কাতালিয়ার মৃত আব্দুল হাকিমের ছেলে। তারা বর্তমানে কারাগারে রয়েছে।