পবিত্র রমজান নিয়ে নরেন্দ্র মোদির মন্তব্যে ব্যাপক তোলপাড়, সমালোচনার ঝড়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- পবিত্র রমজান নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির একটি মন্তব্যে ভারতের রাজনীতিতে তোলপাড় চলছে।

মোদি উত্তর প্রদেশের ফতেহপুরে রোববার এক নির্বাচনী র্যালিতে বলেছেন, রমজান চলাকালে যদি বিদ্যুৎ থাকে তাহলে দিওয়ালির সময়ও থাকা উচিত। রমজানকে দিওয়ালির সাথে তুলনা করার তীব্র সমালোচনা করেছে বিরোধী দল কংগ্রেস, বাম দলগুলো ও আম আদমি পার্টির নেতা দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

মোদির ওই মন্তব্যকে অসম্মান ও হতাশাজনক বলে আখ্যায়িত করেছেন সিপিএম নেতা সিতারাম ইয়েচুরি। কংগ্রেস, আম আদমি পার্টি ও সিপিএম মোদির ওই মন্তব্যকে সাম্প্রদায়িক, দায়িত্বজ্ঞানহীন বলে অভিহিত করেছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন টাইমস অব ইন্ডিয়া।

956bbcdff24a01d8ef4d0960fc74a32a-57e6b7d95800aএতে বলা হয়, উত্তর প্রদেশের ওই নির্বাচনী প্রচারণায় মোদির এমন মন্তব্যের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দেয়ার কথা জানিয়েছে কংগ্রেস পার্টি। দলীয় টুইটে মোদি বলেছেন, জাতি বা ধর্মের ভিত্তিতে কোনো বৈষম্য থাকা উচিত নয়। তিনি বলেন, যদি রমজান চলাকালে বিদ্যুৎ থাকে তাহলে অবশ্যই দিওয়ালি চলাকালে বিদ্যুৎ থাকতে হবে। কোনো বৈষম্য থাকা উচিত নয়।

পিটিআই ও এএনআই জানায়, মোদি আরো বলেছেন, যদি কবরস্থান থাকে তাহলে শ্মশানও থাকতে হবে।

উল্লেখ্য, মুসলিম সম্প্রদায়ের কেউ মারা গেলে তাকে দাফন করা হয় কবরস্থানে। হিন্দু সম্প্রদায়ের কেউ মারা গেলে তার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন করা হয় শ্মশানে। মোদির ওইসব মন্তব্যের জবাবে কংগ্রেসের দলীয় আইনজীবী কে সি মিত্তাল বলেছেন, তারা নির্বাচন কমিশনে মোদির বিরুদ্ধে নালিশ জানিয়ে ফাইল জমা দেবে।

তিনি বলেন, অমন ভুল ও দায়িত্ব জ্ঞানহীন মন্তব্য দেয়া মোদির অবশ্যই উচিত হয়নি। প্রধানমন্ত্রীর ওই বক্তব্য অবশ্যই নির্বাচন কমিশনকে আমলে নিতে হবে। তার বক্তব্য নির্বাচন কমিশনের নিয়মের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। এ কথা বলেছেন কংগ্রস মুখপাত্র আনন্দ শর্মা।

মোদির ওই মন্তব্যকে সাম্প্রদায়িক বলে আখ্যায়িত করেছেন সিপিএমের নেতা সিতারাম ইয়েচুরি। তিনি বলেছেন, এর উদ্দেশ্য হলো হিন্দু ও মুসলিমদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করা। রোববার আম আদমি পার্টির প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল টুইট করেছেন।

এতে তিনি লিখেছেন, মোদির ধর্ম নিয়ে মন্তব্য থেকেই বোঝা যায় যে, উত্তর প্রদেশ নির্বাচনে ভয়াবহভাবে পরাজিত হচ্ছে বিজেপি। নির্বাচনের ফল নিয়ে মোদি এখন নার্ভাস।