স্মার্ট ও সফল হওয়ার সংগ্রামে জয়ী হওয়ার কৌশল!

স্মার্ট ও সফল

ডাঃ মোঃ সাইফুল ইসলাম, লাইফস্টাইল কন্ট্রিবিউটর, সময়ের কণ্ঠস্বর। আমরা সকলেই স্মার্ট ও সফল হতে চাই। তাই স্মার্ট ও সফল হওয়ার সংগ্রামে নিজেকে অধিক মেধাবী প্রমাণে কিছু কৌশল অবলম্বন করতে পারলে যদি জয়ী হওয়া যায় তবে তা অবলম্বন করবেন না কেন?

জানাচ্ছি স্মার্ট ও সফল হওয়ার জন্য আটটি বৈজ্ঞানিক কৌশল। জেনে নিন এখনই। কারণ এগুলো আপনি অনুসরণ না করলেও অন্য কেউ হয়তো আপনার উপরই প্রয়োগ করছে।

ভালভাবে চোখ খোলা রাখা: ‘জার্নাল অফ এক্সপেরিমেন্ট সাইকোলজি’তে প্রকাশিত এক গবেষণায় বলা হয়, যারা চোখের পাতা নামিয়ে রাখে বা চোখ অনেকটা বন্ধ রাখে তাদেরকে কম বুদ্ধিমান মনে করা হয়। তাদের তত্ত্বানুসারে, চোখ বন্ধ রাখা বিষন্নতা অথবা অবসাদকে চিহ্নিত করে। যে দুটো জ্ঞানের পরিধী প্রকাশে বাধা দেয়।

ওজন কমা: একটি চেক গবেষণায় প্রমাণিত হয় সরু মুখ, লম্বা নাক এবং পাতলা থুতনির সমন্বিত অবস্থা বুদ্ধিমত্তা এবং আকর্ষণীয়তা প্রমাণ করে। এসব অবস্থায় ওজনহীনতা প্রমাণিত হয় বলে জানিয়েছে আটলান্টিক বেরিং প্লাস্টিক সার্জারি।

মদ্যপান থেকে বিরত থাকা: পেনসিলভানিয়া ও মিসিগান বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণায় প্রমাণিত হয়, যারা মদ্যপান করেন তাদের বিচক্ষণতা কম হয়। যারা মদ্যপান করেন না তারা অধিক বিচক্ষণ হয়ে থাকেন। গবেষকরা গবেষণাটির নাম দেন ‘নির্বোধ আমদানীকরণ’।

চশমা পরিধান করা: ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে জানা যায়, চশমা পরিধানকারী ব্যক্তিকে চশমা ছাড়া ব্যক্তিদের থেকে বেশি মেধাবী হিসেবে অনুভূত হয়। আবার এই অনুভূতি মোটা চশমা, রিমযুক্ত বা রিম ছাড়া ইত্যাদির উপর ভিন্ন হয়।

মুখে সুক্ষ্ম হাসি: মুখে সুক্ষ্ম হাসি রাখুন। এটি বুদ্ধিমত্তা বৃদ্ধি করে।

কখনও শপথ না করা: হ্যারিস ইনট্যারাকটিভ ৫ হাজার ৮০০ ব্যবস্থাপক এবং কর্মকর্তার উপর জরিপ চালিয়ে জানান শতকরা ৫৪ ভাগ শপথকারী লোক কম বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দেয়। তাছাড়া শপথকারীদের অধিকাংশই কম পেশাদারী হয়, নিজেদের নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ হয় এবং প্রশ্ন করতে অপরিপক্কতার পরিচয় দেয়।

। চোখে চোখ রেখে কথা বলা: নোরা এ. মরফি যিনি লস এঞ্জেলস এর লয়োলা ম্যারিমাউন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর তিনি একটি গবেষণাপত্রে বলেন, শক্তিশালী স্মার্ট ও মেধার পরিচয় তখনই প্রমাণিত হয় যখন চোখে চোখ রেখে সরাসরি সামনের লোকটির দিকে তাকিয়ে কথা বলা হয়। কথা বলার সময় মোবাইল ফোন হাতে না রাখার কথাও উল্লেখ করেন তিনি।

পরিষ্কার ও সুন্দরভাবে কথা বলা: কিছু লোক আছে কথা বলায় অতি বড় বড় শব্দ ও বিভ্রান্তিকর আচরণ করে অধিক বুদ্ধিমত্তা প্রদর্শন করতে চায়। কিন্তু এটা পুরোপুরি ভুল ধারণা। এর পরিবর্তে যোগাযোগ ও কথাবার্তায় স্পষ্ট ও পরিষ্কারভাবে কথা বলতে হয়।