‘এমপি লিটন’ হত্যায় জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি ‘কাদের খান’ গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার, সময়ের কণ্ঠস্বর . জাতীয় পার্টি (জাপা-এরশাদ) সাবেক এমপি কর্নেল (অব.) এ কাদের খানকে গ্রেফতার করেছে গাইবান্ধা জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত গাইবান্ধা-১ সুন্দরগঞ্জ আসনের সরকার দলীয় এমপি মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন হত্যা মামলায় মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বগুড়া শহরের রহমাননগন জিলাদারপাড়া এলাকায় অবস্থিত কাদের খানের মালিকানাধীন গরীব শাহ ক্লিনিক কাম বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

কর্নেল (অব. ) কাদেরকে প্রথমে বগুড়া জেলা গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয় । এরপর সেখান থেকে তাকে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে নিয়ে যায় পুলিশ । এদিকে তাকে গ্রেফতারের পর তার বগুড়া শহরের বাড়িতে ব্যাপক তল্লাশি চালায় গাইবান্ধা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি টিম ।

সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিয়ার রহমান মুঠোফোনে জানান, লিটন হত্যা মামলায় সন্দেহভাজন হিসেবে কর্নেল (অবঃ) কাদের খানকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এর আগে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি রাতে সুন্দরগঞ্জ থেকে বগুড়া শহরের মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের পূর্ব পাশে রহমাননগর জিলাদারপাড়ায় তার মালিকানাধীন গরীব শাহ্ ক্লিনিক কাম বাসায় আসেন কাদের খান। ওইদিন ভোর রাত থেকেই তার বাড়িটি ঘিরে রাখে পুলিশ সদস্যরা। ভবনটির চার তলায় পরিবার নিয়ে বসবাস করেন কাদের খান।

কাদের খান জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের সাবেক সাংসদ। ২০০৮ সালের নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে জয়লাভ করেছিলেন তিনি। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির ‘নির্বাচনে’ আওয়ামী লীগ নেতা মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় গাইবান্ধা-১ আসনে নির্বাচিত হন। ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন নিজ বাড়িতে গুলিতে খুন হলে ওই আসনটি শূন্য ঘোষণা করা হয়। এরই মধ্যে ওই আসনের উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে এবং আগামী ২২ মার্চ ভোট গ্রহণের কথা রয়েছে।