জামালপুরে বিএডিসির বোরো বীজ বিক্রয়ে অনিয়ম

আবদুল লতিফ লায়ন, জামালপুর প্রতিনিধি: বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন (বিএডিসি) জামালপুর বীজ বিপণন বিভাগ অবিক্রিত বোরো ধান বীজ কম মুল্যে বিক্রি করে নিজেদের মাথার বোঝা হালকা করেছে কর্তৃপক্ষ।

bkuk

বিএডিসি জামালপুর বিপণনের কর্মকর্তার যোগসাজশে বীজ সিন্ডিকেটের হোতারা কম মুল্যে এই বীজ কিনে লাভবান হলেও সরকারের গচ্ছা দিতে হয়েছে প্রায় ২০ লাখ টাকা।

বিএডিসির জামালপুর বীজ বিপণন বিভাগের একটি সূত্র জানায়, বোরো ধান মৌসুমে সঠিক তদারকীর অভাবে ৩শ ৪০ মেট্রিক টন বীজ অবিক্রিত থেকে যায়। অবিক্রিত এই বীজ নিয়ে বিপাকে পড়ে বিপণনের কর্মকর্তা। তারা নিজেদের মাথার বোঝা হালকা করতে বীজের মুল্য কমিয়ে দেয়। বর্তমান বাজারে ধানের উচ্চ মুল্য থাকায় বীজ সিন্ডিকেটের হোতারা কম মুল্যে বীজ কিনে লাভবান হলেও মোটা অঙ্কের টাকা গচ্ছা যায় সরকারের।

অভিযোগ উঠেছে, বীজ সিন্ডিকেটের হোতারা বিএডিসি জামালপুর বীজ বিপণন বিভাগের উপ-পরিচালক রিয়াজুল ইসলাম টুটুলকে ম্যানেজ করে ৩৪ থেকে ২৫ টাকা কেজি দরের বীজ মাত্র ২৪ থেকে ২২ টাকায় কিনে নিজেরাই লাভবান হয়েছেন। এতে সরকারের অন্তত: ২০ লাখ টাকা গচ্ছা গেছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিএডিসির একাধিক কর্মকর্তা বলেছেন, মৌসুমের শুরুতেই বিপণনের কর্মকর্তারা তৎপর হলে এবং তালিকাভুক্ত ডিলারদের উদ্বুদ্ধ করে এসব বীজ বাজারজাত করা হলে সরকারের এই লোকসান পরিমাণ অনেকটাই কমিয়ে আনা সম্ভব হতো।

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বিএডিসি জামালপুর বীজ বিপণন বিভাগের উপ-পরিচালক রিয়াজুল ইসলাম টুটুল সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এই বীজ বিক্রি করা হয়েছে। বীজ বিক্রিতে কোন অনিয়ম হয়নি।