নিম্নমানের কাজে বাধা দেওয়ায় ইউপি সদস্যের উপর আক্রমণ

মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি :

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় এলজিইডির নিম্নমানের কাজে বাধা দেওয়ায় জসিম উদ্দিন নামের এক ইউপি সদস্য ও মানিক মিয়া নামের অপর এক গ্রাম পুলিশকে বেদম পিটিয়ে আহত করেছে মেরামত কাজের ঠিকাদার পাভেলের লোকজন। এ ঘটনায় পুলিশ মহাসিন নামে এক জনকে গ্রেফতার করেছে। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার সিঙ্গিমারী ইউনিয়ন পরিষদের সামনের চায়ের দোকানে ঘটনাটি ঘটে।

এ দিকে মঙ্গলবার রাতেই ইউপি সদস্যের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিক্ষুদ্ধ জনতা।

এবিষয়ে জানতে চাইলে সিঙ্গিমারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন দুলু বলেন, পরিষদের পশ্চিম পার্শ্বে এলজিইডির অর্থায়নে একটি ব্রিজের মেরামত কাজ প্রায় ১ বছর ধরে চলছে। ঠিকাদার ঐ কাজে ইটের খোয়া ব্যবহার না করে নিম্নমানের পাথর ব্যবহার করেছে। ব্রিজের কাজ নিম্নমানের হওয়ায় মঙ্গলবার বিকেলে তা বন্ধ করে দেয় স্থানীয় ইউপি সদস্য জসিম উদ্দিনসহ গ্রামবাসী।

pituni-hatibandha-lalmonirhat

এ ঘটনার জের ধরে রাতে পরিষদ এলাকায় একটি চায়ের দোকানে ঐ ইউপি সদস্য জসিম উদ্দিনের উপর হামলা চালায় মেরামত কাজের ঠিকাদার পাভেলের লোকজন। ইউপি সদস্যকে রক্ষা করতে গ্রাম পুলিশ মানিক মিয়া এগিয়ে এলে তার উপরও হামলা চালানো হয়। পরে স্থানীয় লোকজন ইউপি সদস্য জসিম উদ্দিনকে উদ্ধার করে হাতীবান্ধা হাসপাতালে ভর্তি করান। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মহাসিন নামে একজনকে গ্রেফতার করেন। এ ঘটনায় ঐ ঠিকাদারকে আসামি করে থানায় একটি মামলা দেয়া হয়েছে।

হাতীবান্ধা হাসপাতালের চিকিৎসক নাঈম হোসেন নয়ন জানান, ঐ ইউপি সদস্য শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত পেয়েছে।

ঠিকাদার পাভেল নিম্নমানের কাজের অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে শ্রমিক ও ইউপি সদস্যের মধ্যে মারামারি হয়েছে বলে আমি শুনেছি।

হাতীবান্ধা উপজেলা প্রকৌশলী অজয় কুমার সরকার জানান, নিম্মমানের কাজ হলে ঐ ঠিকাদারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

হাতীবান্ধা থানার ওসি রেজাউল করিম ডাবুল জানান, এ ঘটনায় ১ জনকে গ্রেফতার করে জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।