চাঞ্চল্যকর লিটন হত্যাকান্ড : কাদেরের বাড়ি থেকে পিস্তল ও গুলি উদ্ধার

গাইবান্ধা প্রতিনিধি – সাংসদ মনজুরুল ইসলাম লিটন হত্যায় সন্দেহভাজন মূল পরিকল্পনাকারী আবদুল কাদের খানের গ্রামের বাড়ি থেকে পিস্তল, ছয়টি গুলিসহ ম্যাগাজিন উদ্ধার করেছে পুলিশ। উদ্ধার করা পিস্তলটিই এমপি লিটন হত্যাকাণ্ডে ব্যবহার করা হয়েছিল প্রাথমিক ভাবে ধারণা করছে পুলিশ।

বুধবার দিনগত রাত একটার দিকে সুন্দরগঞ্জের ছাপারহাটিতে জাতীয় পার্টির (জাপা) কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক সাংসদ আবদুল কাদের খানের গ্রামের বাড়ির আঙিনার মাটি খুঁড়ে এসব অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

বৃহস্পতিবার সকালে সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিয়ার রহমান এ তথ্য জানান।

kaderer-bari

পুলিশের মহাপরিদর্শক এ কে এম শহীদুল হক গতকাল চট্টগ্রামে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের বলেন, সাংসদ মনজুরুল হত্যার ‘পরিকল্পনাকারী’ আবদুল কাদের খান।তার ইচ্ছা ছিল, মনজুরুলকে সরিয়ে পথ পরিষ্কার করে পরবর্তী সময়ে সাংসদ হবেন।

উল্লেখ্য, সাবেক এমপি আব্দুল কাদেরের বাড়ি সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ছাপরহাটি ইউনিয়নের পশ্চিম ছাপরহাটি (খাঁনপাড়া) গ্রামে। তবে তিনি সপরিবারে বগুড়া জেলা শহরের গরীব শাহ ক্লিনিকের চারতলা ভবনের ওপর তলায় বসবাস করেন।  লিটন হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে মঙ্গলবার (২১ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে সেখান থেকেই তাকে গ্রেফতার করে  গাইবান্ধা জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) সদস্যরা। পরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে বগুড়া থেকে পুলিশভ্যানে করে গাইবান্ধা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে আনা হয় তাকে।

এরপর গতকাল বুধবার দুপুরে তাকে লিটন হত্যা মামলার মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে গ্রেফতার দেখিয়ে ১০ দিনের চেয়ে আদালতে আবেদন করে পুলিশ। এর প্রেক্ষিতে শুনানি শেষে বিচারক ১০ দিনেরই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এমপি লিটন হত্যায় ব্যবহত অস্ত্র উদ্ধারে অভিযান গতকাল  বেলা ৩ টা হতে অভিযান শুরু করে রাত ১০টা পর্যন্ত অভিযান চালায় পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস ইউনিটটি। প্রথম দিনের শ্বাসরুদ্ধ অভিযানে কোন অস্ত্র উদ্ধার করতে পারেনি টিমটি। পরে বুধবার দিবাগত রাত ১টায় দ্বিতীয় দফা অভিযানে একটি পিস্তুল ও একটি ম্যাগজিন উদ্ধার করে পুলিশ।