‘সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে কারো আপত্তি নেই কিন্ত আঃলীগের আছে’

সময়ের কণ্ঠস্বর – আওয়ামী লীগ সরকার দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন চায় না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। তিনি বলেন, নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন এবং সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে কারো আপত্তি নেই কিন্ত আওয়ামী লীগের আপত্তি আছে। কারণ জনগণ যদি নির্বাচনে ভোট দেয়, ভোট কেন্দ্রে সুষ্ঠু ভোট হয় তবে জনগণ তাদের ভোট দিবে না। আর তারা ক্ষমতায় আসতে পারবে না। তাই তাদের পছন্দের ব্যক্তিকে নির্বাচন কমিশনার করেছে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (সৌদি আরব কেন্দ্রীয় কমিটি) কর্তৃক আয়োজিত নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন, নাগরিক প্রত্যাশা ও আগামী সংসদ নির্বাচন শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

নির্বাচন কমিশনার সম্পর্কে তিনি বলেন, বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে দুটি প্রধান দল আওয়ামী লীগ, বিএনপি। এই প্রধান নির্বাচন কমিশনার বিএনপির প্রতি ক্ষুব্ধ এবং আওয়ামী লীগের উপর কৃতজ্ঞ। এমন ব্যক্তিকে রাষ্ট্রপতি কেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার গঠন করলেন বোঝে আসে না।

nojrul-bnp

তিনি আরো বলেন, নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের মাঝে কোনো কৌশল আছে। এই কৌশল অপরাজনীতির কৌশল। জনগণ যা বুঝে নেয়ার নিয়েছে।। জনগণ যদি একবার সুযোগ পায় তবে তার প্রকাশ ঘটাবে।

বিএনপির এ নেতা বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের জন্য জনগণের মধ্যে যে ক্ষোভ এবং তাদের যে আকাঙ্খা রয়েছে তার প্রকাশ ঘটবে আগামী নির্বাচনে। জনগণ তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন।

সৌদি আরব বিএনপির সভাপতি অধ্যাপক আ ক ম রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আহম্মেদ আজম খান, মুক্তিযোদ্ধা দলের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান, সাংস্কৃতিক দলের সভাপতি হুমায়ন কবির ব্যাপারি, জিয়া নগরিক দলের সভাপতি চমিয়া মোহাম্মদ আনোয়ার প্রমুখ।