পুরোপুরি সুস্থ খাদিজা, বাড়ি ফেরার অপেক্ষায়

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার- দীর্ঘ আড়াই মাসের বেশী ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা শেষে এখন পুরোপুরি সুস্থ ছাত্রলীগ নেতা বদরুলের বর্বর হামলার শিকার সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিস।

খাদিজা পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠায় সাভারের পক্ষাঘাতগ্রস্তদের পুনর্বাসন কেন্দ্র (সিআরপি) থেকে আজ (বৃহস্পতিবার) তাকে রিলিজ দেওয়া হয়। আগামী দুই-এক দিনের মধ্যে খাদিজা ফিরে যাবে সিলেটে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সাভারের পক্ষাঘাতগ্রস্তদের পুনর্বাসন কেন্দ্র (সিআরপি) কর্তৃপক্ষ খাদিজার শারিরিক অবস্থার সম্পর্কে জানাতে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। সংবাদ সম্মেলনে খাদিজার চিকিসৎসার দায়িত্বে থাকা ডাক্তাররা উপস্থিত থেকে তার শারিরক অবস্থার তথ্য জানান।

khadijaসংবাদ সম্মেলন থেকে খাদিজার চিকিসার দায়িত্বে থাকা সিআরপির হেড অফ মেডিকেল সার্ভিস এন্ড কনসালটেন্ট এবং নিউরোসার্জন বিশেষজ্ঞ ডা. সাঈদ উদ্দিন হেলাল বলেন, খাদিজা এখন পুরোপুরি সুস্থ। তিনি একাই এখন নিজের যাবতীয় কাজ করতে পারেন। তবে একদম স্বাভাবিক জিবনে ফিরতে খাদিজার আরও অনেক সময় লাগবে তাই।

তাই সিআরপি সাভার সিআরপির সিলেট কেন্দ্রের সাথে যোগাযোগ রেখে খাদিজার পরবর্তীতে আরও থেরাপীর ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানান এই চিকিৎসক।

এছাড়া তিনি আরও বলেন, খাদিজা যখন সিআরপিতে আসে তখন সে হুইল চেয়ারে বসে চলাফেরা করতে। কিন্তু তাদের চিকিৎসায় সে এখন কারো সাহায্য সহযোগীতা ছাড়াই একা একাই হেটে চলাফেরা করতে পারে। খাদিজাকে ৩ মাসের টার্গেট নিয়ে চিকিৎসা শুরু করা হলেও দেড় মাসের মধ্যেই খাদিজা সুস্থ হয়ে উঠায় তাকে রিলিজ করে দেওয়া হচ্ছে বলেও যোগ করেন এই চিকিৎসক।

সংবাদ সম্মেলন থেকে খাদিজা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্বাস্থ্য মন্ত্রী, সিআরপি কর্তৃপক্ষও গণমাধ্যম কর্মীসহ দেশের সকলের প্রতি ধন্যবাদ জানান। সেই সাথে প্রায় ৫ মাস পর সিলেট ফিরে যেতে পারায় আনন্দ প্রকাশ করেন খাদিজা।

এছাড়া তিনি, সিলেট ফিরে আবারও পড়াশুনা করতে আগ্রহ প্রকাশ করেন। সেই সাথে তিনি মাননীয় প্রধান মন্ত্রীকে তার ইচ্ছা পূরনে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিতে অনুরোধ করেন।

সংবাদ সম্মেলন থেকে খাদিজার ভাই শাহীন আলম বলেন, খাদিজা সকলের দোয়ায় এখন পুরোপুরি সুস্থ। এছাড়া আগামী ২৬ মার্চ আদালতে মামলার শুনানীর দিন। ওই দিন খাদিজা নিজেই আদালতে গিয়ে সাক্ষী দিবেস বলেও জানান শাহীন আলম।

2গত ৩ অক্টোবর সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিস পরীক্ষা শেষে বাড়ি ফেরার পথে ছাত্রলীগ নেতা বদরুল আলমের বর্বর হামলার শিকার হন। বখাটে বদরুলের চাপাটির এলোপাথাড়ি কুপে মারাত্মকভাবে জখম হয় খাদিজার মাথা। পরে সিলেট থেকে দ্রুত উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ভর্তি করা হয় ঢাকার স্কায়ার হাসপাতালে। ৯২ ঘন্টা লাইফ সাপোর্টে রাখা হয় খাদিজাকে। স্কয়ার হাসপাতালে প্রায় ২ মাস চিকিৎসা নিয়ে অনেকটা সুস্থ হয়ে উঠেন খাদিজা।

এরপর তাকে গত ২৮ নভেম্বর ফিজিওথেরাপি চিকিৎসার জন্য প্রেরন করা হয় সাভারের পক্ষাঘাতগ্রস্তদের পুনর্বাসন কেন্দ্রে (সিআরপিতে)। সিআরপির হেড অফ মেডিকেল সার্ভিস এন্ড কনসালটেন্ট নিউরোসার্জন বিশেষজ্ঞ ডা. সাঈদ উদ্দিনের হেলালের অধীনে আড়াই মাসের অধিক সময় ফিউওথেরাপি চিকিৎসা নিয়ে এখন পুরোপুরি সুস্থ খাদিজা।

খাদিজাকে আজ সিআরপি কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে রিলিজ দিলেও আগামী দুই-এক দিনের মধ্যে সে সিলেট পৌছাবেন বলে জানা গেছে।