আড়াই বছর পর শূন্য রানে ফিরলেন কোহলি, চাপে পড়লো ভারত

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক –

কিছুটা খাটো লেংথে পড়া বল বাড়তি বাউন্স করে আস্তে করে ছুঁয়ে গেল পূজারার গ্লাভস। তবে ভারত আসল ধাক্কা খেল এক বল পরেই, যখন বিরাট কোহলিও অনুসরণ করলেন পূজারাকে। মুহূর্তের মধ্যে ভারতের স্কোর ৪৪/৩! পূজারা যেমন আউট হওয়ার পর বলতেই পারেন, আমার কিছু করার ছিল না। কোহলির আবার উল্টো অবস্থা; তাঁকে বলতে হবে—দায় আমারই!

মাত্র দ্বিতীয় বল, অফ স্টাম্পের অনেক বাইরে দিয়ে চলে যাচ্ছে। এমন বল ওয়ানডেতেও মাত্র উইকেটে আসা কোনো ব্যাটসম্যান তাড়া করার আগে দুবার ভাববেন। কিন্তু দুর্দান্ত ফর্মে আছেন বলেই হয়তো বেশি ঝুঁকি নিতে প্রলুব্ধ হলেন ভারত অধিনায়ক। পরিণতি স্লিপে স্টিভ স্মিথের হাতে ক্যাচ। গতকাল অস্ট্রেলীয় অধিনায়কের ওরকমই এক পাগলাটে শট জমা পড়েছিল কোহলির হাতেই। শোধবোধ! র‍্যাঙ্কিংয়ের সেরা দুই ব্যাটসম্যানের মধ্যে পাল্টা-পাল্টিটা জমেছে ভালোই!

তবে এমন আত্মহত্যা দিয়েই প্রায় ভুলে যাওয়া এক তেতো স্বাদ পেয়েছেন কোহলি। সেই কবে, ২০১৪ সালে ওল্ড ট্রাফোর্ড টেস্টে শূন্য হাতে ফিরেছিলেন। গত আড়াই বছরে সেই দুঃখটা আর পেতে হয়নি। সেটা আবারও দেখা দিল স্টার্কের হাত দিয়ে।

kohli-test-jero-run-out

আজ অবশ্য দিনটাই শুরু হয়েছে স্টার্ককে দিয়ে। গতকাল একক প্রচেষ্টায় দলের অলআউট হওয়া থামিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান ফাস্ট বোলার। আজ দ্বিতীয় বলেই চার মেরেও ইঙ্গিত দিয়েছিলেন সেটা চালিয়ে যাওয়ার। কিন্তু দিনের পঞ্চম বলেই থামল সব। ডিপ মিড উইকেট দিয়ে ছক্কা মারতে গিয়ে রবিচন্দ্রন অশ্বিনের তৃতীয় শিকার স্টার্ক। অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংস শেষ হলো ২৬০ রানে।

ভারতকে প্রথম ধাক্কাটা অবশ্য স্টার্ক নন দিয়েছেন জশ হ্যাজলউড। দ্বিতীয় বোলার হিসেবে অধিনায়ক বাঁহাতি স্পিনার স্টিভ ও’কিফকে বেছে নেওয়ায়, হ্যাজলউড বল হাতে পেলেন সপ্তম ওভারে। টান এক জায়গায় বল করে যাওয়ার পুরস্কার পেয়েছেন পঞ্চম বলেই। অফ স্টাম্প লাইনে পড়া বলে খোঁচা দিয়ে আউট মুরালি বিজয়। এরপর তো তিন বলের মধ্যে স্টার্কের ওই জোড়া ধাক্কা। স্পিনারদের পিচে অস্ট্রেলিয়ার পেস অ্যাটাকই ভারতের ব্যাটিং লাইন আপের দুশ্চিন্তা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

তবু প্রথম সেশন শেষে ভারতীয়রা যে মুখ গোমড়া করে মাঠ ছাড়েনি, সে কৃতিত্ব লোকেশ রাহুলের। এমনই দুর্দান্ত খেলছেন, দেখে মনে হচ্ছে অন্য প্রান্তে কী হচ্ছে কোনো নজরই নেই তাঁর। কোনো বোলারকেই জেঁকে বসতে দিচ্ছেন না, পুরো মাঠ জুড়ে খেলা রাহুলের শটগুলো একটু হলেও সাহস দিচ্ছে অন্য প্রান্তে থাকা অজিঙ্কা রাহানেকে। এতেই প্রথম সেশনে ৩ উইকেট হারিয়ে ভারতের রান দাঁড়িয়েছে ৭০। জুটিটা পথ দেখাতে শুরু করেছে। তবে চাপের মেঘ এখনো পুনের আকাশে!