কুড়িগ্রামের আজিজুল ইসলাম স্কাউটের ‘রৌপ্য ব্যাঘ্র’ পদকে ভূষিত

ফয়সাল শামীম, নিজস্ব প্রতিবেদক, কুড়িগ্রাম:

বাংলাদেশ স্কাউটের সর্বোচ্চ অ্যাওয়ার্ড ”রৌপ্য ব্যাঘ্র” পদকে ভূষিত হয়েছেন কুড়িগ্রামের প্রাক্তন শিক্ষক আলহাজ আজিজুল ইসলাম। রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ তাকে আনুষ্ঠানিক ভাবে এই সর্বোচ্চ পদক প্রদান করেন।

শিক্ষকতার পাশাপাশি ১৯৬৯ সালে এবিএম আজিজুর রহমানের হাতে দীক্ষা গ্রহনের মাধ্যমে স্কাইট আন্দোলনে প্রবেশ করেন। হাটি হাটি পা পা করে তৎকালীন জাতীয় কমিশনার পি এ নাজির মহোদয়ের কাছ থেকে প্রাপ্ত স্বৃকীতি পেয়ে আজও স্কাউট আন্দোলনের জন্য নীরবে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।

স্বাধীনতা উত্তর কালে ১৯৬৯ সালে আজিজুল ইসলাম স্কাউট বেসিক কোর্স করেন। তিনি ১৯৭৬ সাল থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত একটানা ১৭ বছর কুড়িগ্রাম সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ইউনিট লিডারের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৪ সালে স্কাউট শাখায় উডব্যাজ অর্জন করেন।

ajijul-islam-scoutsতিনি ১৯৯১ সালে সহকারি লিডার ট্রেইনার ও ২০০৩ সালে লিডার ট্রেইনারের দায়িত্ব লাভ করেন। বিদ্যালয়ের ইউনিট লিডারের দায়িত্ব পালন কালে তিনি উক্ত ইউনিটে বিভিন্ন আঞ্চলিক ও জাতীয় পর্যায়ে পুরষ্কৃত হন। তিনি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক থাকাকালীন সময়ে স্কুলের ৩০ শতক জায়গা জেলা স্কাউট ভবনের জন্য বরাদ্ধের ব্যবস্থা করেন। সেখানে বর্তমানে জেলা স্কাউটস এর কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

তার ৪৭ বছরের স্কাউটিং জীবনে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা পালনের জন্য বাংলাদেশ স্কাউটস তাকে প্রশংসাপত্র, ন্যাশনাল সার্টিফিকেট, মেডেল অব মেরিট, বার টু দি মেডেল অব মেরিট, লং সার্ভিস ডেকোরেশন, লং সার্ভিস অ্যাওয়ার্ড এবং ২০০৯ সালে সর্বশেষ রৌপ ইলিশ পদক প্রদান করে। সবশেষ তিনি বাাংলাদেশ স্কাউটের সর্বোচ্চ অ্যাওয়ার্ড ”রৌপ্য ব্যাঘ্র” পদকে ভুষিত হয়েছেন।

আজিজুল ইসলাম বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত প্রায় সকল স্কাউট জাম্বুরী, কাব ক্যাম্পুরী, কমডোকাসহ সকল জাতীয় পর্যায়ের ইভেন্টে সাফল্যের সাথে অংশগ্রহন করেছেন। তিনি একজন সফল প্রশিক্ষক হিসেবে স্কাউট শাখায় বেসিক, অ্যাডভান্সড সহ প্রায় সকল প্রশিক্ষণে কোর্স লিডার, প্রশিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ স্কাউটস দিনাজপুর অঞ্চলের লিডার ট্রেনার প্রতিনিধি ও কুড়িগ্রাম জেলা স্কাউটসের সহ সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

স্কাউটস আজিজুল ইসলাম জানান, জীবনের অর্ধশত বছর ধরে স্কাউটস আন্দোলন করছি। রাষ্ট্রপতির এই রৌপ্য বাঘ্র্য পদকে আমাকে আরও দায়িত্ব বাড়িয়ে দিয়েছে। জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত স্কাউট আন্দোলনের সাথে জড়িত থাকবো। নতুন প্রজন্মকে আরও কিছু দেয়ার চেষ্টা করবো।